সাংবাদিকদের জবাই করার হুমকি দেয়া সেই মাওলানা রিমান্ডে


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১২ এপ্রিল ২০২১, ১৭:১৫

খেলাফত তথা ইসলামি শাসন ব্যবস্থা কায়েম হলে সব সাংবাদিককে জবাই করার ঘোষণা দেয়া কওমি শিক্ষক ওয়াসেক বিল্লাহ নোমানীকে একদিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

ময়মনসিংহ মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে সোমবার (১২ এপ্রিল) তাকে জিজ্ঞাসাবাদে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক একেএম রওশন জাহান একদিনের রিমান্ড আদেশ দেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার বলেন, ওয়াসেক বিল্লাহ নোমানীর বিরুদ্ধে এসআই মাহবুব বাদী হয়ে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে একটি মামলা করেন। এ ছাড়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরেকটি মামলা করেন সাংবাদিক রাকিবুল ইসলাম শাহিন। আজ তাকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে তোলা হলে আদালত তাকে একদিনের রিমান্ড আদেশ দিয়েছেন।’

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, কওমি মাদ্রাসা শিক্ষক ওয়াসেক বিল্লাহ নোমানী উগ্র কণ্ঠে বলছেন, আল্লাহ যদি আমাদেরকে তৌফিক দেয়, আর যদি ইনশাআল্লাহ খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে পারি, যদি আল্লাহ তৌফিক দেয় আর যদি ইনশাআল্লাহ খেলাফত কায়েম করতে পারি, আল্লাহর কসম, আল্লাহর কসম, সংবাদ দেখার টাইম পাবি না। সংবাদ দেখার টাইম পাবি না। একটা একটা ধরব আর জবাই করব, জবাই করব ইনশাল্লাহ।’ এ সময় মাওলানা নোমানী হাত দিয়ে জবাই করার বিষয়টি দেখান। আর ওয়াজে উপস্থিত শ্রোতারা সবাই উচ্চস্বরে চিৎকার করেন।

তিনি বলেন,‘যতদিন বাঁচব, বাঘের মতো বাঁচব। আর যদি মরতে হয় ইনশাল্লাহ দুই চার দশটাকে জাহান্নামে পাঠিয়ে এরপর মরব ইনশাল্লাহ। সবাই রাজি আছি তো ইনশাআল্লাহ।’

অন্যদিকে অমুসলিমদের বিরুদ্ধে উস্কানি দিয়ে নোমানী বলেন, ‘অমুসলমান, এখন থেকে আমরাও তইয়ার (তৈরি)। আমাদেরকে ঘাড় ভাঙবি, আমরাও ঘাড় ভাঙব। কারা কারা তইয়ার?’

শ্রোতারা এই পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে চিৎকার করতে থাকলে মাওলানা নোমানী বলেন, ‘তবে রক্ত দিতে হবে, রক্ত, রক্ত। আমার বয়ানই আজকে রক্ত নিয়ে। ও মুসলমান রক্ত দিতে রাজি আছেন?’

এসময় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘সবাই সবাই। বুঝেন, চিন্তা করে বলেন। ভয় পাচ্ছেন না তো, নাকি? ভয় পাচ্ছেন না তো? রক্ত দেবেন ইনশাল্লাহ? রক্ত দেবেন তো ইনশাল্লাহ? রক্ত দিয়েছে কে? তাহলে মুসলমান, আজকে থেকে ডাইলগ পরিবর্তন। ডাইলগ চেঞ্জ। এখন থেকে আর রক্ত দেব না, অনেক রক্ত দিয়েছি আমরা।

রক্ত দিতে দিতে এ জীবন শেষ করে দিল। এখন থেকে সাফ সাফ কথা। এখন থেকে আর রক্ত দেব না। কারা কারা তইয়ার? রক্ত নেবো, রক্ত নেব, রক্ত নেব ইনশাল্লাহ।’ ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি পুশিলে নজরে আসেলে রোববার (১১ এপ্রিল) বিকেলে তাকে নিজ বাসা থেকে আটক করা হয়।

 






ads
ads