তাড়াশ উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন, নেতৃত্বে আসছেন কারা?

- ছবি: প্রতিনিধি

poisha bazar

  • ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:২২

সোহেল রানা সোহাগ, তাড়াশ: অবশেষে নানা জলপনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সময়সীমা চূড়ান্ত হলো সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনর। দীর্ঘ ৮ বছর পরে আগামী ৬ ফেব্রয়ারিতে হতে যাচ্ছে তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের এ সম্মেলন। গতকাল ২৬ জানুয়ারি জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। আর এ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই তাড়াশ উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলে আলোচনা চলছে। উপজেলার মোড়ে মোড়ে চায়ের কাপে ঝড় তুলছেন দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। এমন কি বাদ যায়নি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও।

দীর্ঘ আট বছর পর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক এ সম্মেলন ইতোমধ্যে প্রার্থিতা ঘোষণা করে মাঠে নেমেছেন আওয়ামী লীগের অনেক বর্ষীয়ান নেতা। ভোট ও সমর্থন সংগ্রহের জন্য যাচ্ছেন তৃণমুল নেতা-কর্মীদের কাছে। চলছে উপর মহলে বিভিন্নভাবে লবিং, গ্রুপিং ও তদবির। উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতির মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে গুঞ্জন উঠেছে সাবেক ও সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী ম ম আমজাদ হোসেন মিলন ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হকের। আর সাধারণ সম্পাদক পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রলীগনেতা সঞ্জিত কর্মকার এবং বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যক্ষ মনিরুজামান মনি এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক প্রভাষক মর্জিনা ইসলাম।

তবে কাউন্সিলর তালিকা নিয়ে রয়েছে বিতর্ক। অনেক ত্যাগী ও পুরনো নেতা-কর্মীদের নাম বাদ পরেছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে। তালিকায় রয়েছে অনেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সম্পাদকের স্ত্রী, স্বজন এমন কি সরকারি চাকরিজীবীদের নাম ।

এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের ভারপাপ্ত সভাপতি এ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসানের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী যদি সকল ইউনিয়নের পুর্ণাঙ্গ কমিটি না করা হয়ে থাকে তবে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়াও ৬ ফেব্রয়ারি তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, জেলা আ’লীগের বর্ধিত সভায় আপাতত সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে। তবে কেন্দ্রের নির্দেশে এ সম্মেলন পেছাতে পারে।

দলীয় সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে ২৫ জানুয়ারি সর্বশেষ তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ায় সাংগঠনিক কার্যক্রমও ঝিমিয়ে পড়ে। সেই সঙ্গে স্থবির হয়ে পড়ে সহযোগী সংগঠনগুলোর কার্যক্রমও। তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক বলয়। তাই সকল গ্রুপিং লবিংয়ের সমাপ্তি ঘটিয়ে সুন্দর একটি নেতৃত্ব আসবে সে প্রত্যাশায় তাড়াশ উপজেলাবাসী।

মানবকণ্ঠ/আইএইচ

 






ads
ads