চসিকে মেয়র প্রার্থীর প্রচারণায় যুবলীগ নেতা আদিত্য নন্দী ছুরিকাহত


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:২৫,  আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:৩০

নগরের পাঁচলাইশে যুবলীগের মিছিল শুরুর আগে কথা-কাটাকাটির জেরে ছুরিকাঘাতে কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার সম্পাদক আদিত্য নন্দী আহত হয়েছেন। রোববার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে ষোলশহর কসমোপলিটন আবাসিক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

তবে কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। এ বিষয়ে জানতে আদিত্য নন্দীর মোবাইল নাম্বারে কল করা হলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক বিষয়টি নিশ্চিত করে সিভয়েসকে বলেন, আদিত্য নন্দীকে ছুরিকাঘাতের ঘটনাটি সত্য। যুবলীগের মিছিল শুরুর আগে কসমোপলিটন আবাসিক এলাকার মুখে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। আহত হওয়ার সাথে সাথে তাকে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়। সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নেয়ার পরে তাকে বাসায় নেয়া হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।’

আগামী ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে ৭৩৫ জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, ৪ হাজার ৮৮৬ জন সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা এবং ৯ হাজার ৭৭২ জন পোলিং কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন। ইভিএমের মাধ্যমেই ভোটগ্রহণ হবে।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ৪১টি ওয়ার্ডের মধ্যে ভোটার সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ লাখ ৯২ হাজার ৩৩ জন ও নারী ভোটার ৯ লাখ ৪৬ হাজার ৬৭৩ জন। ৭৩৫টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৭৩৩টি স্থায়ী ও দুটি অস্থায়ী। বুথ সংখ্যা রয়েছে ৪ হাজার ৮৮৬টি ভোট কক্ষ।

২০১০ সালের চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে প্রথমবারের মতো ইভিএম-এ ভোট দেন ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ডের ভোটাররা। এরপর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালী-বাকলিয়া) আসনের চসিক ১৫ থেকে ২৩ এবং ৩১ থেকে ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড পর্যন্ত মোট ১৪ ওয়ার্ডের ভোটার ইভিএম-এ ভোট দেন। এর আগে ভোটারদের ইভিএম ভীতি দূর করতে মক ভোটিং এর ব্যবস্থা করা হয়।






ads
ads