গার্মেন্টসে প্রেম, বিয়ে করে খালাতো ভাইকে দিয়ে রাতভর ধর্ষণ


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:০২

নিজের স্ত্রীকে আপন খালাতো ভাইকে দিয়ে রাতভর ধর্ষণ করানোর অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণে আপত্তি তুললে ওই বধূকে বেধড়ক মারধরও করা হয়েছে। এ ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার বাঘবেড় আখড়াপাড়ায়।

ওই গৃহবধূর বাড়ি শেরপুর সদর উপজেলার চান্দেরনগর গ্রামে। গাজীপুরে গার্মেন্টসে কাজ করার সুবাদে দেড় বছর আগে নালিতাবাড়ী উপজেলার বাঘবেড় আখড়াপাড়া গ্রামের মাহাবুর রহমানের ছেলে মাহিদুল ইসলামের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর প্রেম। একপর্যায়ে বিয়েও হয়। গাজীপুরেই বাসা ভাড়া নিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে থাকছিল মাহিদুল।

সম্প্রতি গাজীপুর থেকে মাহিদুল বাড়ি চলে আসে। মঙ্গলবার রাতে স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে আনার কথা বলে বাঘবেড় গ্রামের বোন জামাই রহুল আমীন বাবুর বাড়িতে তোলে মাহিদুল। সেই বাড়িতে মাহিদুল নিজের স্ত্রীকে একই গ্রামের আপন খালাতো ভাই আবদুল মালেকের হাতে তুলে দেয়। এরপর রাতভর স্বামী মাহিদুল ও খালাতো ভাই মালেক মিলে গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। এতে আপত্তি জানালে দুজনই তাকে বেধড়ক মারধর করে।

বুধবার ভোরে বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয়রা গৃহবধূকে উদ্ধার করে।

এদিকে, ভুক্তভোগী গৃহবধূ ওই এলাকা থেকে আসতে চাইলে অভিযুক্ত মালেকের বাবা ইব্রাহিম তার দোকানে আটকে মীমাংসার কথা বলে ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গৃহবধূকে উদ্ধার করে। এছাড়া ইব্রাহিম ও মাবর আলীকে আটক করে। তবে ঘটনার পর পালিয়ে গেছে মাহিদুল ও মালেক।

এ ব্যাপারে নালিতাবাড়ী থানার ওসি বছির আহমেদ বাদল জানান, ভুক্তভোগী গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শেরপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।






ads