করোনায় দুর্জয় ইফার ১৪০ স্বেচ্ছাসেবী


poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৩ জুলাই ২০২০, ২০:৪৫

করোনাকালে মানুষজন যখন মৃত আত্মীয়দের লাশটিও দেখতে যান না সেই কঠিন দুঃসময়ে করোনায় আক্রান্ত কিংবা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী লোকদের দাফন ও সৎকার সম্পন্ন করে কিশোরগঞ্জে ‘দুর্জয়’ উপাধি লাভ করেছে সাহসী ১৪০ স্বেচ্ছাসেবী। করোনা ও করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া কিশোরগঞ্জের ৪৩ জন ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) গঠিত স্বেচ্ছাসেবক টিমটি এই উপাধি লাভ করেছে।

এর মধ্যে জেলার ভৈরব উপজেলায় ১৩ জন, বাজিতপুরে ৯ জন, হোসেনপুরে ৬ জন, তাড়াইলে ৪জন, নিকলীতে ২জন, করিমগঞ্জে ২জন, কটিয়াদিতে ২জন, কুলিয়ারচরে ১ জন, পাকুন্দিয়ায় ১জন, মিঠামইনে ১ জন, কিশোরগঞ্জ সদরে ২জন মৃত ব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করেন ইফার কিশোরগঞ্জের স্বেচ্ছাসেবী টিম।

কিশোরগঞ্জ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক মোহাম্মদ ফারুক আহামেদ জানিয়েছেন, জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ৪৩ জন ব্যক্তির দাফন কাফন করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গঠিত স্বেচ্ছাসেবক টিম। তিনি জানান, করোনাভাইরাসে মৃতদের দাফনে কিশোরগঞ্জে ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা) গঠিত ১৪০ জনের স্বেচ্ছাসেবক টিম আন্তরিকভাবে কাজ করছে। প্রতি উপজেলায় ১০ জন করে গঠিত এ টিমের প্রত্যেককে সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান জানিয়েছেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া এক বিষয় নয়। দেখা গেছে, পরবর্তীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির রিপোর্টে নেগেটিভ এসেছে। কিন্ত দাফন কাফন ঠিকই সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক হয়েছে।

আর এভাবেই করোনা উপসর্গ ও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদেরকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের টিম দাফন কাফন করে যাচ্ছে। এছাড়াও করোনায় মৃতদের কাফন-দাফন ও সমাজসেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে ‘আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ (রহ.) ফাউন্ডেশন’। দাফন-কাফন কাজে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি গাড়িও দেয়া হয়েছে সংগঠনটিকে।





ads






Loading...