তাড়াশে সড়কে 'মিনি পুকুর', নজিরবিহীন ভোগান্তি

সোহেল রানা সোহাগ, তাড়াশ

মানবকণ্ঠ
খালকুলা বাজার এলাকার চিত্র - ছবি : প্রতিবেদক

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১৩ জুলাই ২০২০, ১৩:২১

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ-খালকুলা আঞ্চলিক সড়ক যেন ছোট ছোট পুকুরের ঠিকানা। হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত তাড়াশের এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির এখন বেহাল দশা। মাঝে মাঝে সড়কের কার্পেটিং ও ইটের প্রলেপ উঠে বড় বড় গর্তে 'মিনি পুকুর' তৈরি হয়েছে। সেসব গর্তে পরে নিত্যদিনই ভাংছে অটো রিকশার চাকা। নজিরবিহীন ভোগান্তিতে পড়ছেন যাত্রীরা।

রবিবার সকালে সরেজমিনে সড়কটি ঘুরে ছোট-বড় খানাখন্দ, ঝুঁঁকি নিয়ে চলা যানবাহন এবং যাত্রী-পথচারীদের নজিরবিহীন ভোগান্তির খন্ড খন্ড দৃশ্য চোখে পড়ে। মহাসড়ক থেকে তাড়াশ উপজেলায় যাতায়াতের একমাত্র সড়কটিতে নিত্যদিন দুর্ভোগ মোকাবেলা করেই শত শত যাত্রীকে চলাচল করতে হচ্ছে। নাভিশ্বাস উঠেছে স্থানীয় পথচারীদেরও।

স্থানীয় বাসীন্দা ওসমান আলী বলেন, কষ্টের যেন শেষ নাই। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তার বড় বড় গর্ত যেন পুকুরে রূপ নেয়। নিয়ন্ত্রণ হারানোর ভয় নিয়েই এই মরণফাঁদ পাড়ি দিতে হচ্ছে আমাদের। তবুও নজর নাই (সওজের কর্মকর্তাদের)।

স্থানীয় যুবলীগ নেতা মইনুল ইসলাম জানান, বহুদিনে প্রতীক্ষার পরে আমাদের অতিগুরুত্বপুর্ণ সড়কটি মাস দুই আগে সংস্কার হয়। কিন্তু সড়কটি দিয়ে ড্রামট্রাকে মাটি পরিবহন করায় ও খালকুলা বাজারের দুএকজন ব্যবসায়ী সড়কের দুপাশে মাটি ভরাট করে উচুঁ করায় সড়কে পানি জমে থাকছে। বর্তমানে বড় কোন গাড়ি এদিক দিয়ে চলাচল করতে পারছে না।

এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম জানান, সড়কটির কিছু অংশ সংস্কার করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ অংশ খুব দ্রুতই মেরামত করা হবে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/সোহাগ

 





ads






Loading...