টুঙ্গিপাড়া ডাক্তারকে শারীরিক লাঞ্চনার প্রতিবাদে চিকিৎসকদের কর্মবিরতি চলছে

মানবকণ্ঠ
- ছবি : প্রতিবেদক

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ জুলাই ২০২০, ১৪:৩৪

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কর্তব্যরত ডাক্তারকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে ও নিরাপদ কর্মস্থলের দাবিতে সেখানকার চিকিৎসকেরা দ্বিতীয় দিনের মতো চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছেন।

আজ সোমবার সকাল থেকে তারা দ্বিতীয় দিনের মতো তাদের কর্মবিরতি শুরু করেন। দোষী ব্যক্তিরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসকেরা তাদের কর্মবিরতী পালন করে যাবেন বলে জানিয়েছেন।

তবে টুঙ্গিপাড়া থানা পুলিশ আসামিদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করেছেন বলে জানিয়েছেন টুঙ্গিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাকিব হাসান তরফদার। অন্যদিকে, চিকিৎসকেরা বলেছেন, মূল আসামি কাজী তরিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করা না হলে তারা তাদের কর্মবিরতি চালিয়ে যাবেন।

এ ব্যাপারে বিএমএ, গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ হুমায়ন কবির বলেছেন, ডাঃ অপূর্বকে লাঞ্চনাকারী মূল আসামি তরিকুলকে আগামীকাল মঙ্গরবার সকাল
১০টার মধ্যে গ্রেফতার দেখতে চাই।

বিএমএ, গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি ডাঃ এম এম মঈন উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, টুঙ্গিপাড়ায় কর্মরত চিকিৎসকেরা চিৎিসকের উপর হামলার প্রতিবাদে ও নিরাপদ
কর্মস্থলের দাবিতে যে আন্দোলন করছে তার সাথে আমরা একাত্মতা প্রকাশ করেছি।

আগামীকাল সকাল ১০টার মধ্যে মূল আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করতে না পারলে বিএমএ থেকে তারা বৃহত্তর কর্মসূচী গ্রহণ করবেন বলেও জানান।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (৪ জুলাই) সকাল ৮টার দিকে একজন রোগী করোনা উপসর্গ নিয়ে টুঙ্গিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য গেলে সেখানে সাড়ে ৮টার দিকে ওই
রোগী মারা যান। তাকে চিকিৎসা দিতে দেরী হয়েছে এমন অযুহাতে কর্তব্যরত চিকিৎসক অপূর্ব বিশ্বাসকে কাজী তরিকুলসহ রোগীর বেশ কয়েকজন স্বজনরা শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন।

এ ঘটনার জের ধরে ডাক্তারদের পক্ষ থেকে গত (শনিবারই) টুঙ্গিপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় এবং ২৪ ঘন্টার মধ্যে আসামিদেরকে গ্রেফতার করা না হলে চিকিৎসকেরা ধর্মঘটে যাবেন বলে আল্টিমেটাম দেন। এই সময়ের মধ্যে পুলিশ দোষীদের গ্রেফতার করতে না পারায় তারা ইনডোর, করোনা রোগীদের চিকিৎসা করা বাদে আউটডোর চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছেন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/রাজীব

 





ads






Loading...