রাস্তার এমন অবস্থা অ্যাম্বুলেন্সও চলতে পারে না

- ছবি: প্রতিবেদক

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ৩০ জুন ২০২০, ১৪:২৭,  আপডেট: ৩০ জুন ২০২০, ১৪:৩২

ঝালকাঠি সদর উপজেলার গাবখান ব্রিজের পশ্চিম ঢাল রুপসিয়া (পুরাতন ফেরিঘাট) হতে শেখেরহাট টেম্পু স্ট্যান্ড পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। পুরাতন ফেরিঘাট থেকে শুরু করে সম্পূর্ণ সড়কটি খানা খন্দে ভরা।

এ সড়কটির মাধ্যমে গাবখান, ওস্তাখান, সারেংগল ও শেখেরহাটসহ আরো বিভিন্ন গ্রাম থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ জীবনের ঝুকি নিয়ে চলাচল করে। সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত এ অবস্থায় পড়ে আছে। এতে ওই সব এলাকার লোকজনের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ সব এলাকার লোকজনের এখন একটাই দাবি যেন দ্রুততার সাথে সড়কটি সংস্কার করার উদ্যোগ নেয়া হয়।

গাবখান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোঃ মহিদুল ইসলাম জানান, ঝালকাঠি-গাবখান -শেখেরহাট রাস্তায় চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে। রোগী নেয়ার জন্য ভাঙা রাস্তার কারণে অ্যাম্বুলেন্সও আসতে পারে না। তাই রোগীকে পায়ে হেঁটে ১ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে উঠতে হয়েছে। উন্নয়নের এই বেহাল দশা থেকে আমরা কবে মুক্তি পাব একমাত্র আল্লাহ ভালো জানেন বলে হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী বাকি বিল্লাহ জানান, রুপসিয়া থেকে ৪ কিলোমিটার সড়কের কাজের প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে অনুমোদন ও বরাদ্দ পেলে প্রকল্পটির কাজ শুরু হবে।

তিনি আরও জানান, পরবর্তী ৪ কিলোমিটার সড়কের কাজ নদী ভাঙ্গনের কারণে আপাতত করা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা সড়কটির পাশে বিআইডব্লিউটিএ এর জমি বরাদ্দ চেয়ে ১০ (দশ) কোটি টাকার প্রকল্পটির প্রস্তাবনা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠিয়েছি। সেটি খুব দ্রুত অনুমোদন হয়ে আসলে তখন রাস্তাটি ভালো মানের করা হবে বলেও তিনি জানান।

মানবকণ্ঠ/এসকে




Loading...
ads






Loading...