টেকনাফ পৌরসভাকে রেডজোন ঘোষণা


poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ জুন ২০২০, ২৩:৫০

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভার আংশিক এলাকাকে রেডজোন ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রশাসন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভায় এই সিদ্বান্ত নেয়া হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশেষ সভায় টেকনাফ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আলম, টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার টিটিু চন্দ্র শীল, উপজেলা নির্বাহী কমিশনার ভূমি আবুল মনসুর, এমওডিসি প্রণয় রুদ্র, টেকনাফ থানার ওসি তদন্ত এবিএমএস দোহা, টেকনাফ পৌরসভার সচিব, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলম বাহাদুর, কোস্টগার্ডের প্রতিনিধি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, টেকনাফ পৌরসভার মূলকেন্দ্র ও প্রবেশপথ শীলবুনিয়া পাড়া চকবাজার সংলগ্ন ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের ডেইল পাড়া চৌরাস্তার মোড় ২ ও ৪নং ওয়ার্ডের ইসলামাবাদ বটগাছতলা মোড় ও হাসপাতাল সংলগ্ন হেস্থখাল ব্রীজ এলাকা রেড জোনের অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। রেড জোনে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা আবশ্যক বিবেচনায় আগামী ৭ জুন রাত ১২টা থেকে ২১ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত নিদের্শনা প্রদান করা হলো।

তিনি বলেন, রেড জোন এলাকায় সকল প্রকার ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক, রাজনৈতিক গণজমায়েতসহ গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যবহনকারী হালকা ও ভারী যানবাহন রাত ৮টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত চলাচল করতে পারবে। অ্যাম্বুলেন্স, রোগী পরিবহন, স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী ব্যক্তিবর্গের (অনডিউটি) পরিবহন, কোভিড-১৯ মোকাবিলা ও জরুরি সেবা প্রদানের জন্য গাড়ি চলাচল করা যাবে। সকাল প্রকার দোকান, মার্কেট, হাট-বাজার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। শুধু রোব ও বৃহস্পতিবার কাঁচা বাজার ও মুদি দোকান স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। ঔষুধের দোকান এর আওতার বাইরে থাকবে।

তিনি আরোও বলেন, কোভিড-১৯ মোকাবিলা ও জরুরি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান সীমিত আকারে রোব, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার ব্যাংক খোলা থাকবে। সকল হাসপাতাল চিকিৎসা সেবা ও কোভিড-১৯ মোকাবিলায় পরিচালিত ব্যাংকিং সেবা প্রদান আওতার বাহিরে থাকিবে। কোন প্রকার গণজমায়েত করে ত্রাণ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা যাবে না। এলাকায় গঠিত ওর্য়াড কমিটি ও স্বেছাসেবক কমিটি কঠোরভাবে দায়িত্বপালন করবেন। আগামী দুই সপ্তাহের জন্য জেলা প্রশাসক কক্সবাজার মহোদয়ের নির্দেশনায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হবে। এই ১৪ দিনের কঠোরতায় করোনার প্রাদুর্ভাব না কমলে প্রয়োজনানুসারে লকডাউনের সময় আরও বাড়তে পারে।




Loading...
ads






Loading...