মাদারীপুরে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

মানবকণ্ঠ
- ছবি : প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৯ মে ২০২০, ১৫:২০

মাদারীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নুর আলম হাওলাদার (৩৩) নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতিপক্ষ রাসেল চৌকিদারের (৩০) লোকজনের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) দুপুরে সদর উপজেলার পৌর শহরের পাবলিক লাইব্রেরী সংলগ্ন হাওলাদার মোটরসে এ ঘটনা ঘটে।

নুর আলম সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়নের হাজির হাওলা এলাকার মৃত আলাউদ্দিন হাওলাদারের ছেলে। রাসেল চৌকিদার একই এলাকার মওলা চৌকিদারের ছেলে।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে নুর আলম বাড়িতে আসার জন্য দোকান বন্ধ করতে তালা মারছিল। এমন সময় রাসেল চৌকিদারসহ ৮/১০ জন নুর আলমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে ফেলে রেখে চলে যায়। এলাকাবাসী তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর প্রেরণ করেন। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায় নুর আলমের মৃত্যু হয়।

এদিকে এঘটনা ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ভাংচুর ও বেশকিছু ঘরে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও ফায়ারসার্ভিস দল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নিহতের বোন রহিমা মানবকণ্ঠকে বলেন, আক্তার বেপারি এই হত্যার মূল নায়ক। তার হুকুুমে রাসেল, তোতাসহ কয়েকজন মিলে আমার ভাইকে হত্যা করছে। আমার ভাইয়ের এক ছেলে ও তার স্ত্রী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। আমার ভাইয়ের খুনিদের বিচার চাই।

এ ব্যাপারে আক্তার বেপারি বলেন, এই দ্বন্দ্ব আমি শহরে বসে একটা সমাধান করে দিতে চেয়েছিলাম তার আগেই এঘটনা ঘটে গেছে।

'এই হত্যার সাথে আপনি জড়িত কি না'- এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমি এঘনার সাথে জড়িত না।

মাদারীপুর জেলা কৃষকলীগের সভাপতি জাকির হোসেন হাওলাদার বলেন, নুর আলম সদর উপজেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন। এই হত্যার সাথে যারা জড়িত তাদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।

মাদারীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. বদরুল আলম মোল্লা (সদর সার্কেল) মানবকণ্ঠকে বলেন, খুনের ঘটনায় ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দোষীদের খুব তাড়াতাড়ি আইনের আওতায় আনা হবে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/হক




Loading...
ads






Loading...