রাঙ্গামাটিতে সেনাবাহিনীর 'এক মিনিটের বাজার’

সেনাবাহিনীর 'এক মিনিটের বাজার’
সেনাবাহিনীর 'এক মিনিটের বাজার’ - ছবি: প্রতিনিধি

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১৫ মে ২০২০, ২০:৩০

করোনাভাইরাস দুর্যোগ মোকাবিলায় অসহায়, দুস্থ ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য মানবিক উদ্যোগ হিসেবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ‘এক মিনিটের বাজার’ চালু করেছে সেনাবাহিনী। শুক্রবার সকালে রাঙ্গামাটি মারী স্টেডিয়াম জিওসি ২৪ পদাতিক ডিভিশনের নির্দেশে রাঙ্গামাটি রিজিয়নের তত্বাবধানে ও রাঙ্গামাটি জোনের ব্যবস্থাপনায় এই বাজার চালু হয়।

এ বাজারে ছিল চাল, আলু, ঢেঁড়শ, শসা, বরবটি, কচুঁর লতি, মিষ্টি কুমড়া, চিচিংগা ও কাঁচা মরিচ। এক মিনিটের মধ্যে এই ৯ ধরনের খাদ্য সামগ্রী প্রতিটি অসহায় মানুষের মাঝে বিনামূল্যে প্রদান করেন সেনাবাহিনী।

সরেজজমিনে দেখা গেছে, অসহায়, দুস্থ ও নিম্ন আয়ের মানুষের তালিকা তৈরি করে প্রত্যেককে একটি করে টোকেন দেয়া হয়। ওই টোকেন দিয়ে ‘এক মিনিটের বাজার’ থেকে সবাই প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী সংগ্রহ করে।

এ ব্যাপারে রাঙামাটি সেনা রিজিয়ন রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ ইফতেকুর রহমান বলেন, বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে জনজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে অসহায়, দুস্থ ও খেটে খাওয়া মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করার জন্য বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই জিওসি ২৪ পদাতিক ডিভিশনের নির্দেশে রাঙ্গামাটি রিজিয়নের তত্ত্বাবধানে ও সদর সেনা জোনের অক্লান্ত পরিশ্রমে ‘এক মিনিটের বাজার’ নামে এ উদ্যোগটি হাতে নেয়া হয়েছে। এই বাজারের দ্রব্যগুলো প্রান্তিক কৃষকের খেত থেকে প্রতিনিধির মাধ্যমে ক্রয় করা হয়েছে। তাতে এই দুঃসময়ে কৃষকরা তাদের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে।

তিনি জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাস দমনের পাশাপাশি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মার্চ মাস থেকে বৈশ্বিক মহামারী কোভিট-১৯ মোকাবিলায় জনপ্রশাসনকে সহায়তা করতে মাঠে আছেন। রাঙ্গামাটির ১০টি উপজেলার মধ্যে ৮টি উপজেলায় সেনা মোতায়েন ও সহায়তা করে আসছেন এবং করোনা পরিস্থিতি যতদিন থাকবে এ ধরনের মানবিক উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটি সদর জোন কমান্ডার লে. কর্নেল মো. রফিকুল ইসলাম, বিএম ৩০৫ পদাতিক মেজর মো. মাহাবুবুর রহমানসহ সেনা সদস্যরা।

 






ads