ভারতে আটকে পড়া ৪৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরলো

নাগেশ্বরীতে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ
- ছবি: প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১৬:৫৫,  আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১৭:৩০

ভারতে আটকে পড়া ৪৫ জন বাংলাদেশি নাগরিক ভারতীয় ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ অনুমতি পেয়ে আজ সোমবার সকালে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। তাদেরকে বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এর আগে গত শুক্রবার বিকালে ৮৫ জন ও শনিবার সকালে ৩৮ জন বাংলাদেশি নাগরিক দেশে প্রবেশ করে। এর ফলে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে তিন দফায় ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করলো ১৬৮ জন বাংলাদেশি।

জানা যায়, ভারতে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরার খবর পেয়ে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে ছুটে আসেন যশোরের জেলা প্রশাসক মোঃ শফিউল আরেফিন, ৪৯ বিজিবি’র কর্মান্ডিং অফিসার লে. কর্ণেল সেলিম রেজা, বেনাপোল পৌর সভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, জেলা পুলিশের নাভারন সার্কেলের এএসপি জুয়েল ইমরান সহ প্রসাশনের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা।

এর আগে কোয়ারেন্টাইনের স্থান নির্বাচনের জন্য ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা সকালে বেনাপোল পৌরসভায় মেয়র আশরাফুল আলম লিটনের সাথে বৈঠক করেন। এক পর্যায়ে বেনাপোল পৌর কমিউনিটি সেন্টারকে (পৌর বিয়ে বাড়ী)  কোয়ারেন্টাইনের স্থান হিসাবে নির্বাচন করে। আজ দুপুরে ভারত ফেরতদেরকে পৌর বিয়ে বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়।

উল্লেখ্য, আজ দেশে ফেরা এসব বাংলাদেশিরা ভারত লকডাউনের আগেই ট্যুরিস্ট ও মেডিকেল ভিসা নিয়ে ভারতে যায়। করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে ভারতে অবস্থানকারী বাংলাদেশিদের শর্ত সাপেক্ষে দেশে ফেরার অনুমতি দেয় ভারত। কোলকাতাস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে স্বাস্থ্যসনদ গ্রহণের পর ১৬৮ জন বাংলাদেশিকে ভারতীয় ইমিগ্রেশন বাংলাদেশে ঢোকার অনুমতি দেয়।

বেনাপোল চেকপোষ্টের ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা আহসান হাবিব জানান, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিশেষ সহযোগীতায় গত ৩ দিনে ১৬৮ জনকে বিশেষ ব্যবস্থায় বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়। তাদের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে প্রত্যেকের পুর্ণাঙ্গ ঠিকানা ও মোবাইলফোন নম্বর রাখা হয়েছে। স্ব-স্ব জেলায় সেগুলো পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

এদিকে, বেনাপোল চেকপোষ্টে কর্মরত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ইউসুফ আলী জানান, ভারতফেরত প্রতিটি যাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা যথাযথভাবে করা হচ্ছে। কোনো যাত্রীর শরীরে সন্দেহজনক কোন কিছু পাওয়া গেলে সঙ্গে সঙ্গে ইমিগ্রেশনকে অবহিত করা হচ্ছে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে




Loading...
ads






Loading...