মাস্ক ও স্যানিটাইজারের সাথে বেড়েছে কনডমের চাহিদা


poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ৩১ মার্চ ২০২০, ২২:৪৮,  আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০২০, ০০:০৫

বিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বিস্তার রোধে দেশে ১০ দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে ছুটি। এই সময়ে সরকারি-বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকলেও হাসপাতাল, খাবার হোটেল, ফার্মেসি সহ জরুরিসেবা প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। পুলিশি সেবাও থাকছে এর পাশাপাশি। এর সাথে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী।

যদিও জরুরি অবস্থায় সবাইকে বাসায় থাকার অনুরোধ করা হয়েছে। বিষয়টি কেউ মানছেন আবার কেউবা বিষয়টিকে পাত্তাই দিচ্ছেন না। যারা পরিবারকে সময় দিতে পারেন না তাদের কাছে ব্যাপারটা যেন অন্য রকম আনন্দ বয়ে এনেছে। আনন্দে সময় কাটাচ্ছেন স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে।

গত কয়েকদিন উত্তরার বেশ কিছু ফার্মেসী ঘুরে জানা যায়, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সাথে সাথে এই মুহূর্তে সবচে চাহিদা বেড়েছে কনডমের। আখি মনি ফার্মেসীর মালিক জানান, ভাই এই মুহূর্তে যা কনডম চলছে সে রকম ঔষধ চললে আগামী ১ বছরের ফ্ল্যাট বুকিং দেয়া কোন ঘটনাই না।

তিনি আরো বলেন, শুনেছি এই সাধারণ ছুটি ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়বে। সাধারণ ছুটি হলেও আমাদের কাছে এ ছুটি অসাধারণ। তাছাড়া সকল দোকানপাট বন্ধ থাকলেও খোলা রাখা হয়েছে ফার্মেসিগুলো। তাই নির্বিঘ্নে ব্যবসা চালিয়ে যাওয়া যাচ্ছে। মজার ব্যাপার হচ্ছে সারাবছর যে পরিমাণ কনডম বিক্রি হতো তা এবার কয়েকদিনের মধ্যেই বিক্রি হয়ে গেছে।

উত্তরা এরব ফার্মার আল-আমিন জানালেন, সম্প্রতি প্রচুর পরিমাণে বিক্রি হচ্ছে কনডম। এখনো পর্যাপ্ত পরিমাণে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ও ফ্লেবারের কনডম রয়েছে। চাহিদা বেড়েছে হঠাৎ করেই।

বাউনিয়া বটতলা এলাকার একটি ফার্মেসীতে কনডম কিনতে আসা এক যুবক নাম প্রকাশ না করা শর্তে জানান, আমি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে মার্কেটিং এর চাকরি করি। বাড়িতে স্ত্রীকে বেশি একটা সময় দিতে পারতাম না। বিয়ে করেছি মাত্র চার মাস হয়েছে। এবার যেতেতু সরকারিভাবে ১০ দিনের ছুটি পেয়েছি তাই পরিবারকে সময় দিতে পারবো।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/খান




Loading...
ads






Loading...