বাগেরহাটে চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে আহত যুবকের মৃত্যু

মানবকণ্ঠ

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১২ মার্চ ২০২০, ১৫:০৭

বাগেরহাটের কচুয়ায় চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে আহত শামীম শেখ (২৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। খুুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শামীম। ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২৯ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার দিকে পার্শ্ববর্তী জেলা পিরোজপুরের সীমান্তবর্তী চালিতাখালি (মজুমদার বাড়ির চর) থেকে কচুয়া উপজেলার সবতকাঠি গ্রামের গফফার শেখের ছেলে নাদিম ও শামীম গরু চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়দের হাতে গণপিটুনির স্বীকার হন তারা। খবর পেয়ে শিকদার মল্লিক ফাড়ি ইনচার্জ এস আই আরিফের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালে স্থানীয়রা ২ গরু চোরকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। এতে মারাত্মক আহত হয় শামীম ও নাদিম। তাদেরকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শামীম। এর আগেও নাদিম ও শামীম শেখের বিরুদ্ধে এলাকায় দলবদ্ধ সন্ত্রাসী তৎপরতা, চুরি, ডাকাতিসহ বহু অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে।

তারা বিভিন্ন স্থানে একাধিকবার চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে বলে অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। এর আগে নিহতের আরেক ভাই শাহীন রাতের বেলায় ডাকাতির কালে স্থানীয়দের হাতে গণপিটুনিতে নিহত হয়েছেন বলে জানা যায়। শুধু নাদিম শামীমই নয় তাদের পরিবারের বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে চুরি, ডাকাতিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রমের অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে কচুয়া থানাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুর রহমান বলেন, চালতাখালি গ্রামে গরু চুরি করতে গিয়ে ধরা পরে গণপিটুনির শিকার হয় শামীম ও নাদিম। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শামীম মারা যায়। শামীমের নামে একাধিক থানায় একাধিক চুরি ও ডাকাতির মামলা রয়েছে। শামীমের মৃত্যুর ঘটনায় ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরে আইনগত প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

মানবকণ্ঠ/জেএস



poisha bazar

ads
ads