দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে নিঃস্ব বিধবা পারুল

দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে নিঃস্ব বিধবা পারুল
বিধবা পারুল

  • ১০ মার্চ ২০২০, ১৮:১৭

রাজু খান, ঝালকাঠি: ঝালকাঠি সদর উপজেলার গাবখান ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পেছনে দুই ছেলে নিয়ে খুপড়ি ঘরে বসবাস করতেন হোটেল বাবুর্চি বিধবা পারুল বেগম (৩৫)। দুর্বৃত্তদের দেয়া আগুনে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন তিনি।

সোমবার ভোরে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বসতঘরটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে ঝালকাঠি সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

পারুল বেগম জানান, নানা বাড়িতে মায়ের পাওয়া জমিতে টিনের চালা দিয়ে খুপড়ি ঘর বানিয়ে তিন সন্তান নিয়ে বসবাস করতাম। বড় মেয়ে জুনিয়া বিবাহযোগ্য হলে তাকে বিয়ে দেয়া হয়েছে প্রায় দুই বছর আগে। জুম্মান (১৫) ও সিফাত (১০) কে নিয়ে ওই ঘরে থাকতাম। বছরখানেক আগে স্বামীও মারা গেছেন। সোমবার ভোরে দুর্বৃত্তরা ঘরের চারপাশে আগুন লাগিয়ে দেয়। এতে ঘরসহ ঘরে থাকা মালামাল সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

আগুন দেখে ডাক চিৎকার দিয়ে ছেলেদের নিয়ে পাশের ঘরে আশ্রয় নেই। স্থানীয়রা আগুন নেভাতে চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আসলে ততক্ষণে ঘরটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ঝালকাঠির একটি হোটেলে বাবুর্চির কাজ করে সেখান থেকেই খাবার এনে ছেলেদের নিয়ে খেতাম। বেতনের টাকা দিয়ে সংসারের প্রয়োজনীয় মালামাল কিনেছিলাম। আগুনে আমার সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে দুই লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। আমার এখন আর কিচ্ছু নাই বলে আহাজারি করেন বিধবা পারুল।

স্থানীয় ইউপি সদস্য হুমায়ুন কবীর জানান, পারুল হোটেলে ঝিয়ের কাজ করে জীবিকানির্বাহ করতো। দুই ছেলে নিয়ে টিন ও কাঠের তৈরি খুপড়ি ঘরে থাকতো। হোটেলের বেতনের টাকা দিয়ে ঘরে প্রয়োজনীয় অনেক মালামাল কিনেছিলো। সোমবার ভোরে দুর্বৃত্তরা পারুলের ঘরে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। এতে পারুলের সব পুড়ে ছাই হওয়ায় সে এখন নিঃস্ব হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

মানবকণ্ঠ/আরবি



poisha bazar

ads
ads