মানিকগঞ্জে ইছামতির ব্রিজ যেনো মরণফাঁদ!

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:২২,  আপডেট: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:৪১

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার হিজুলিয়ার ইছামতি নদীর উপর ৩৬ বছর পূর্বে নির্মিত ব্রিজটি মারাত্মক ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। পূর্ণ মেরামত না করায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ২০-২৫ গ্রামের হাজারো মানুষ। ব্রিজটি দ্রুত পুনর্নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। ঘিওর উপজেলা এলজিইডি অফিস ইছামতি নদীর উপর ব্রিজটি নির্মাণ করে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ব্রিজটির দুপাশের রেলিং দুটি দীর্ঘদিন যাবৎ ভেঙে গেছে। পরে রেলিং হিসেবে ব্রিজের উভয় পাশে বাঁশ বেঁধে দেয়া হয়েছে। মাঝে মধ্যে ব্রিজ থেকে রিকশা, ভ্যান, পিকআপ, অটোবাইকসহ সাধারণ জনগণ ও শিক্ষার্থীরা নিচে পড়ে মারাত্মক আহত হওয়ার ঘটনা ঘটছে। প্রতিবছর বন্যার মৌসুমে পানির প্রবল স্রোতের কারণে নিচের পিলার থেকে মাটি সরে সরে বর্তমানে মারাত্মক ঝুঁকিতে পরিণত হয়েছে। এছাড়া উভয় পাশের ওয়াল থেকে মাটি ধসে গেছে।

সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন নয়াচর, করজনা, নেকিরকান্দি, রাহাতহাটি, মেহেদীপুর, মল্লিকপুর, বাড়াদিয়া, আগুনপুর, বহুলাকুল, নয়াবাড়িসহ প্রায় ২০-২৫টি গ্রামের হাজারো জনগণ ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে।

হিজুলিয়া এলাকার বাসিন্দা ও বড়টিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি খন্দকার হুমায়ূন কবির বলেন, এ সেতুটিতে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ অনেক পথচারী। স্থানীয়দের ঝুঁকি এড়াতে আমরা কিছু যুবকদের নিয়ে নিজ উদ্যোগে ৩ বছর যাবৎ ব্রিজের দুপাশে বাঁশ দিয়ে রেলিং করে দিচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, সেতুটি অধিকতর ঝুকিঁপূর্ণ হওয়ায় এলাকার গরীব কৃষকদের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পরিবহনের জন্য বাড়তি ভাড়া ব্যয় করতে হচ্ছে। তিনি ব্রিজটি দ্রুত মেরামতের দাবি জানান।

হিজুলিয়া এলাকার বাসিন্দা ও বড়টিয়ায় ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান জানান, এ ব্রিজটি এতই ঝুকিঁপূর্ণ যে কোনো যানবাহন এবং সাধারণ মানুষ চলাচল করলে কম্পনের সৃষ্টি হয়। যে কোনো সময় ঘটতে পারে মারাত্মক হতাহতের ঘটনা।

ঘিওর উপজেলা প্রকৌশলী মো. সাজ্জাকুর রহমান বলেন, আমরা ব্রিজটি ইতোমধ্যে পরিদর্শন করে একটি প্রস্তাবনা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠিয়েছি। আশা করছি অতি দ্রুত ব্রিজটি পুনর্নির্মাণ করতে পারবো।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads






Loading...