বাঁশখালীতে বিদ্যুতের খুঁটি মাঝে রেখে ভবন নির্মাণ

বাঁশখালীতে বিদ্যুতের খুঁটি মাঝে রেখে ভবন নির্মাণ - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • সংবাদদাতা, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০১:৫৩

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার সরল ইউনিয়নের পাইরাং দেলা মার্কেট এলাকায় ৩৩ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই চলছে ভবন নির্মাণ। এতে করে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে বিষয়টি নিয়ে মাথা ব্যথা নেই ভবন মালিকের। ঝুঁকির বিষয়টি জেনেও তিনি কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

নির্মাণ শ্রমিকরাও ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন ভবনটিতে। সম্প্রতি বৈদ্যুতিক খুঁটি মাঝে রেখেই তৈরি করা হচ্ছে দ্বিতল ভবন।নব নির্মিত ভবনটির মালিক মাহবুব আলী নামের এক ব্যক্তি। তিনি পেশায় একজন প্রবাসী।

সরেজমিনে পরিদর্শন কালে স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ঝুঁকিপূর্ণ এই বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেতরে রেখেই নির্মান করা হচ্ছে পাকা দালান ঘর। কিন্তু বিদ্যুতের খুঁটি বসানো থাকা অবস্থায় নিচে নব নির্মিত ব্যক্তিমালিকানাধিন বসতবাড়ী খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ও বিপদ জনক হলে কোন ধরনের বাধা না মেনে তৈরি করা হচ্ছে পাঁকা দালান। বহু বছর পূর্বে উক্ত খুঁটির গুলোর মাধ্যমে উপজেলা সদরের মেইন স্টেশনটিতে ৩৩ হাজার ভোল্টের সঞ্চালন লাইন এসছে চান্দনাইশের দোহাজারী উপজেলা থেকে। ভবনের টিক উত্তর পার্শ্বে ভিতরেও রাখা হয় ৩৩ হাজার ভোল্টের লাইনসহ বিদ্যুতের খুঁটি। এই খুঁটির উপরের অংশে বিদ্যুতের মেইন লাইন। বিদ্যুতের খুঁটি ভেতরে রেখেই মাহবুব আলী নিচ তলার ছাদ ঢালাই করেন। এতে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা। যদি তার ছিঁড়ে পড়ে যায় তা হলে আর রক্ষা নেই।

ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে ওই পরিবারটি। স্থানীয়রা আরও জানান, ভবন নির্মাণ শুরুর সময় তাকে বৈদ্যুতিক খুঁটি থেকে নিরাপদ দূরত্ব রেখে ভবন নির্মানের পরামর্শ দেয়া হয়। তবে সে কারো পরামর্শই শুনেননি।

ভবন মালিক মাহবুব আলীর ছোট ভাই জামাল উদ্দীন বলেন, পল্লী বিদ্যুতের অফিসের সাথে আমরা যোগাযোগ করি নাই। কারন প্রায় ২৫-৩০ উচু দিয়ে ৩৩ হাজার ভোল্টের সঞ্চালন লাইন গেছে। মাত্র এক তলা হয়েছে । এর বেশী উচু করবেনা। তাই দুর্ঘটনা ঘটার তেমন একটা আশঙ্কাও দেখছি না। তেমন কোন সমস্যা হবে বলে মনে করি না।

বাঁশখালী পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম নাজিম উদ্দীন বলেন, আমরা বিষয়টি জানতে পেরেছি, মালিক পক্ষকে শীগ্রই নোটিশ দিব । এ চিঠির অনুলিপি আমরা চেয়ারম্যান কে ও দিব। যাতে পরবর্তীতে কোন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটলে আমরা যাতে দায়বদ্ধ না হই। খুঁটির নিচে ১০ পিটের উপরে কোন ঘর বাড়ী তোলা যাবে না। চিঠিতে খুঁটি থেকে নিরাপদ দূরত্ব রেখে অথবা নির্মিত ভবনের অংশ ভেঙে নিরাপদ দূরত্ব রাখতে বলা হবে। তবে নির্মিত ভবনের অংশ ভেঙে নিরাপদ দূরত্ব তৈরি না করলে ওই ভবন মালিকের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মানবকণ্ঠ/এমএইচ




Loading...
ads






Loading...