টঙ্গীতে ট্রাকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ

মানবকণ্ঠ
গণধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার চারজন - ছবি: সংগৃহীত

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:৪৮,  আপডেট: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯:৫৬

গাজীপুরের টঙ্গীতে বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে বাড়ি ফেরার পথে ইজিবাইক থেকে জোর করে ট্রাকে তুলে নিয়ে এক কিশোরীকে (১৫) চারজনে মিলে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এ ঘটনায় গ্রেফতার অভিযুক্ত চার যুবককে শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ থানার আক্কাস আলীর ছেলে মো.শাহবুদ্দিন (২০), জামালপুরের বকশিগঞ্জ থানার বিল্লাল মন্ডলের ছেলে বাবু মন্ডল (২০) ও ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার আবুল হোসেনের ছেলে তোফাজ্জল হোসেন (১৯) ও মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর থানার খোরশেদ আলমের ছেলে মো. নয়ন (১৮)।

টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, ওই কিশোরী টঙ্গীর ভরান এলাকায় একটি পার্লারে কাজ করতো। শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে টঙ্গীর চেরাগ আলী এলাকা থেকে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে টঙ্গীর হিমারদিঘি এলাকায় পৌঁছালে ইজিবাইকের গতিরোধ করে বখাটেরা। এ সময় ওই কিশোরীর সঙ্গে থাকা ছোট ভাই মো. আলম ও ইজিবাইকের চালককে মারধর করে কিশোরীকে জোর করে একটি ট্রাকে তুলে নিয়ে চারজন মিলে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে ইজিবাইকচালক মো. শামিম থানায় গিয়ে আইনগত সহায়তা চাইলে পুলিশ ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায় এবং চারজনকে হাতেনাতে আটক করে।

ওই কিশোরীর পরিবার জানায়, চেরাগআলী এলাকায় পার্লারের মালিকের বাসায় বিয়ের অনুষ্ঠানে যায় তাদের মেয়ে। তবে রাতে নিরাপত্তার কথা ভেবে ছোট ভাইকে সঙ্গে নিলেও রক্ষা হয়নি। এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন।

ওসি (তদন্ত) জাহিদুল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত চারজনই ট্রাকের হেলপার। ঘটনার পরপরই ধর্ষণের অভিযোগে তাদের আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads






Loading...