বাগেরহাটে স্কুলের জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক।

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:৫৩

বাগেরহাটের ফকিরহাটের লখপুর ইউনিয়নের বাঐডাংগা বিএল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে একই এলাকার মৃত মাহাতাব সর্দার এর ছেলে রবিউল সর্দার (নবিন) ও স্থানীয় একটি ভূমিদস্যু চক্র। এই চক্রটি জমি নিজেদের মালিকানা দাবি করে জাল কাগজপত্র তৈরি করে বিদ্যালয়ের মাঠ নিজ দখলে নেওয়ার জোর চেষ্টা করছে। এর আগেও ভূমিদস্যুরা স্কুলের জমি দখল করে গাছপালা রোপণসহ ঘর নির্মাণ করেছে।

এ ব্যাপারে এলাকাবাসী রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) বাগেরহাট জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

অভিযোগ ও স্কুল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, ১৯০৬ সালে ব্রজমোহন শাস্ত্রে স্কুলটি প্রতিষ্ঠিত করেন। সেই সময় থেকে স্কুলের খেলার মাঠ হিসাবে জমিটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ১৯৮০ সালে স্থানীয় মৃত মাহতাব সরদার এই স্কুলের মাঠের জায়গা জাল দলিল করে ভোগদখলের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ সরকার পক্ষ হতে ভিপি লীজ নিয়ে আজ অবধি ভোগদখল করে আসছে। প্রতি বছর এখানে ক্রীড়া অনুষ্ঠান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ওয়াজ মাহফিল হয়ে আসছে। এমতাবস্থায় রবিউল সরদার ১৯৮০ সালে স্কুলের ৩৩ একর জমি জাল দলিল তৈরি করে ভোগদখলের চেষ্টা করলে স্কুল কর্তৃপক্ষ উক্ত জাল দলিলকে চ্যালেঞ্জ করে। জমিটি স্কুলের প্রমাণিত হয়। তখন রবিউল সর্দার ম্যানেজিং কমিটির কাছ থেকে জমিটি লীজ নিয়ে ভোগ দখল করে আসছিলো। বর্তমানে তিনি আবারো জাল দলিল করে তার আওতায় থাকা স্কুলের কাছ থেকে লীজ নেওয়া জমি নিজের মালিকানা দাবি করে জবরদখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই ভূমিদস্যু নামে বেনামে স্কুলের জমি ছাড়াও অনেক জমি ভুয়া জাল কাগজপত্র বা দলিল করে গ্রামে আলোচিত হয়ে আছে। স্কুলের জমি জবরদখলকারী তেরাইল গ্রামের আব্দুল গনি গংদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ ও সরকারি সম্পত্তি উদ্ধারের দাবি জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

এ বিষয়ে মানসা-বাহিরদিয়া ইউনিয়নের সরকারি ভূমি কর্মকর্তা গোলাম মোর্তজার সাথে আলাপকালে তিনি জানান, কাগজপত্র দেখে আমার কাছেও মনে হয়েছে রবিউল সরদারের কাগজপত্র সঠিক নয়।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বলেন, কর্তৃপক্ষ আমাদের কাছে একটি আবেদন করেছে, তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান স্বপন কুমার দাশ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। ঘটনার সত্যতা পেলে কোনো জালিয়াতি চক্রসহ ভূমিদস্যুদের কোনোপ্রকার ছাড় দেওয়া হবে না।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে রবিউল সর্দার (নবিন) বলেন, ক্রয়সূত্রে জমি দখল করা হয়েছে। তিনি বলেন, উক্ত জমি ভূলবশত আর এস রেকর্ড এ বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে শিক্ষা বিভাগের নামে হয়েছে। এতে কোন সমস্যা নেই। সব ঠিক করে নেব। আমার ক্ষমতাবলে আমি জমি দখল করে বসবাস করছি, আমার বিরুদ্ধে লিখে কোনো লাভ হবে না।

মানবকণ্ঠ/জেএস



poisha bazar

ads
ads