• শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
  • ই-পেপার
12 12 12 12
দিন ঘন্টা  মিনিট  সেকেন্ড 

পঞ্চগড়ে সংঘর্ষে আহত ব্যক্তির মৃত্যু

পঞ্চগড়ে সংঘর্ষে আহত ব্যক্তির মৃত্যু
পঞ্চগড়ে সংঘর্ষে আহত ব্যক্তির মৃত্যু - প্রতিনিধি।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ২২:১০

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর গ্রামে পাথর উত্তোলনকারী শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে আহত জুমার উদ্দিন (৬০) মারা গেছেন।

রোববার বিকেলে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। জুমার উদ্দিনের বাড়ি ভজনপুর ইউনিয়নের গনাগাছ গ্রামে।

হাসপাতালের চিকিৎসক মোহাম্মদ সিরাজ-উদ-দৌলা পলিন সন্ধ্যায় মৃত্যু খবর নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সকালে শ্রমিকরা পাথর উত্তোলনের সুযোগ দেয়ার দাবিতে ভজনপুর বাজারে একত্রিত হয়ে বিক্ষোভ করে। তারা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ আসলে পুলিশের ওপর হামলা করে। তখন পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

শ্রমিকরা পুলিশের তিনটি গাড়ি ভাঙচুর করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তিন রাউন্ড টিয়ারসেল ও আট রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য যোগ দিলে তাদের সঙ্গেও শ্রমিকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এ সময় পুলিশের নয়সহ সদস্য কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়।

সংঘর্ষে গুরুতর আহত জুমার উদ্দিনকে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তেঁতুলিয়া উপজেলায় অবৈধভাবে দীর্ঘ বছর ধরে মাটি খুড়ে পাথর উত্তোলন করা হয়। এতে উপজেলার হাজার হাজার শ্রমিক জড়িত। কয়েক বছর ধরে স্থানীয় প্রভাবশালীরা মেশিনের মাধ্যমে পাথর উত্তোলন শুরু করে। তথন থেকে শ্রমিকদের মধ্যে কর্মহীন হওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়।

কয়েক মাস আগে পুলিশ একের পর এক অভিযান চালিয়ে পাথর উত্তোলন বন্ধ করে দেয়। এতে শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়ে।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, সকালে শ্রমিকরা সড়কে অবস্থান করছে- খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। তখন শ্রমিকরা পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা করে এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করে। আত্মরক্ষা করতে পুলিশ লাঠিচার্জ ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে।

তিনি বলেন, যারা ড্রেজার মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলন করতেন, তাদের উস্কানিতে শ্রমিকরা এই বিক্ষোভ করছে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...