বিয়ের খাবার খেয়ে দেড়শতাধিক অসুস্থ, ঘটনাস্থলে চিকিৎসকরা

বিয়ের খাবার খেয়ে দেড়শতাধিক অসুস্থ, ঘটনাস্থলে চিকিৎসকরা
বিয়ের খাবার খেয়ে দেড়শতাধিক অসুস্থ, ঘটনাস্থলে চিকিৎসকরা - প্রতিনিধি।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২১ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:৫৮

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার প্রতাপ গ্রামে বিয়ের অনুষ্ঠানের খাবার খেয়ে দেড়শতাধিক লোক অসুস্থ হয়ে পরার ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি চিকিৎসকদের টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

মঙ্গলবার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. মুনীবুর রহমান জুয়েলের নেতৃত্বে ওই চিকিৎসক দল বিয়ে বাড়িতে সরেজমিনে পরিদর্শনে যান। এসময় তার সাথে ছিলেন মেডিকেল অফিসার ডা. নবীবন কুন্ডু ও স্যানেটারি পরিদর্শক মাহফুজা আক্তার।

পরিদর্শন শেষে নলছিটি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. মুনীবুর রহমান জুয়েল জানান, সরেজমিনে মেডিকেল টিম ঘটনাস্থল পরির্দশন করে সকল খাবারের স্যাম্পল সংগ্রহ করে যা নিরিক্ষার জন্য মহাখালির ক্যামিকেল ল্যাবরেটরি এবং আইসিডিডিআরবিতে পাঠানো হবে। তবে প্রাথমিক তদন্ত শেষে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে বিয়ে বাড়ির খাবারের ম্যানুতে সরবারহকৃত দধিতে পয়জনিং যুক্ত থাকায় একসাথে এত লোক অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনা ঘটেছে।

এছাড়া জেলা সিভিল সার্জন মহোদয় এ ঘটনার সঠিক কারণ জানতে পৃথক অপর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন বলে এ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আরো জানান।

এদিকে ওই বিয়ে বাড়িতে দধি সরবারহকৃত প্রতিষ্ঠান জেলা শহরের চৌমাথা এলাকার বনকলি মুসলিম সুইটস তালাবদ্ধ করে মালিক কর্মচারীরা পালিয়ে গেছে। জানা গেছে, ওই প্রতিষ্ঠান থেকেই ৩০ কেজি দধি ক্রয় করেছিলেন গৃহকর্তা ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার দুপুরে প্রতাপ গ্রামে ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামের বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন ২৫০ জন। দুপুরে খাবার খেয়ে সকলেই অসুস্থ হয়ে পড়েনে। বিকেল থেকে তারা ঝালকাঠি সদর, নলছিটি ও বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। প্রত্যেকেরই বমি ও পাতলা পায়খানা হয়েছে। অনেকে বমি করতে করতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেনে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, খাবারে বিষক্রিয়ার কারনে অসুস্থরা বেশিরভাগ ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনায় এখনো সদর হাসপাতালে ৮০ জনের মত অসুস্থ রোগী ভর্তি রয়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...