আড়াই বছর আগে ধান নিয়ে লাপাত্তা ট্রাক মালিক গ্রেফতার

আড়াই বছর আগে ধান নিয়ে লাপাত্তা ট্রাক মালিক গ্রেফতার
ধান নিয়ে পালিয়ে যাওয়া প্রকাশ চান্দু - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ২১:১৫,  আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ২১:৩৭

বাগেরহাটের মোল্লাহাট থেকে আড়াই বছর আগে ২৫০বস্তা ধান নিয়ে পালিয়ে যাওয়া সেই ট্রাকসহ মালিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) ভোরে যশোর সদরের খড়কি গ্রামের জিন্নাত আলীর ছেলে ট্রাক মালিক চান্দে আলী ওরফে প্রকাশ চান্দুকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় চোরাই কাজে ব্যবহৃত ট্রাকটি জব্দ করে যশোর পুলিশ লাইনে রাখা হয়।

এ ঘটনায় বাগেরহাট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে ওই ট্রাকের চালক মোবাশ্বের মল্লিক।

বাগেরহাট পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মনজুরুল হাসান মাসুদ বলেন, বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর গ্রামের ধানচাল ব্যবসায়ী আবুল খায়ের শেখ মুন্সিগঞ্জে ধান নিয়ে যাওয়ার জন্য ট্রাক ভাড়া করেন। ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিল বিকালে ভাড়াটিয়া ট্রাক চালক রনি শেখ ২৫০ বস্তা ধান ভর্তি করে মুন্সিগঞ্জের উদ্দেশে রওয়ানা দেয়। এরপর থেকে আর তাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় পরের দিন ওই ব্যবসায়ী আবুল খায়ের শেখ মোল্লাহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ধানের হদিস না পাওয়ায় থানা পুলিশ ওই বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর আদালতে মামলাটির চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। এরপর বাদি আদালতে নারাজী দিলে আদালত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ওপর তদন্তভার দেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা তদন্ত করে প্রথমে ট্রাকের হেলপার সুজনকে গ্রেফতার করে তার স্বীকারোক্তি ও তার ফোনকল ট্রাকিং করে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানার একটি মামলায় জেলে থাকা ট্রাক চালক মোবাশ্বের মল্লিককে আদালতের মাধ্যমে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখিয়ে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করি। ট্রাক চালক মোবাশ্বের মল্লিকের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মঙ্গলবার ভোরে মূলহোতা ট্রাকের মালিক চান্দে আলী ওরফে প্রকাশ চান্দুকে গ্রেফতার করি। এসময় ওই ট্রাকটিকেও জব্দ করা হয়। এঘটনায় তারা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ১৩টি চোরাই মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার বিকালে ট্রাকের চালক মোবাশ্বের মল্লিক বাগেরহাট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাবেয়া বেগমের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছেন বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

পিবিআই বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, অপরাধ ও অপরাধীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। আলোচিত মামলার সঠিক তথ্য উদঘাটন করে আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে আমরা সকলের সহযোগিতা কামনা করি।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads






Loading...