শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের গাছে বাধা স্কুলছাত্রের লাশ

শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের গাছে বাধা স্কুলছাত্রের লাশ
শ্রীমঙ্গলে চা বাগানের গাছে বাধা স্কুলছাত্রের লাশ - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • সংবাদদাতা, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:০৩,  আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৯:১৭

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় চা বাগানের একটি গাছের সাথে বাধা অবস্থায় ইব্রাহিম মিয়া রকি (১৪) নামের ৮ম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে নিহতের লাশ উপজেলার কালীঘাট ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাড়াউড়ার বুড়বুড়িয়া চা বাগানের বধ্যভূমির পাশ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে বেলা আড়ইটার দিকে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের ধারণা ওই স্কুলছাত্রকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তবে কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড পুলিশ ও নিহতের পরিবার সে ব্যাপারে কিছু বলতে পারছেন না।

নিহত রকি শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল। সে এবছর ৮ম শ্রেণির পরীক্ষায় অংশ নিয়ে নবম শ্রেণীতে উর্ত্তীণ হয়। তার পিতা মাংস ব্যবসায়ী দুলাল মিয়া। শ্রীমঙ্গল পৌর এলাকার ভানুগাছ সড়কের ১০ নম্বর এলাকার মতিন মিয়ার বাসায় ভাড়া থাকেন।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে রকি নিখোঁজ ছিল। এ ঘটনায় রাতে মাইকিং করে তার সন্ধান চাওয়া হয় এবং থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। মঙ্গলবার সকালে চা বাগানের শ্রমিকরা বাগানে কাজে গেলে একটি গাছের গোড়ায় বাঁধা অবস্থায় একটি মরদেহ দেখতে পান। পরে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে।

শ্রীমঙ্গল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল মালেক জানান, নিহত রকির গলা রেসকিনের কাপড় ও চাদর দিয়ে প্যাচানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

ঘটনাটি তদন্তে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে বলে জানান শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামান।

তিনি জানান, ঘটনার আলামত সংগ্রহের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর একটি বিশেষ দল ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি মো. আব্দুছ ছালেক বলেন, এই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে ব্যাপক তদন্ত চলছে। হত্যাকারীদের চিহ্নিত করা হলেই গ্রেফতারে অভিযান চালানো হবে। কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড সে বিষয়ে নিহতের পরিবারও কিছু বলতে পারছে না। তবে আমাদের ধারণা, কোনও পূর্ব বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads






Loading...