শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আধুনিক ওয়াশব্লক

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আধুনিক ওয়াশব্লক

poisha bazar

  • ০৬ জানুয়ারি ২০২০, ২১:০০

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় শিশু শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার, হাত ধৌতকরণসহ নিরাপদ পানির ব্যবহার নিশ্চিত করতে ১২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্মাণ করা হয়েছে আধুনিক ওয়াশব্লক। সোমবার সকাল ১০টার দিকে এসব ওয়াশ ব্লকের উদ্বোধন করেন এফএইট’র কান্ট্রি ডিরেক্টর সমরেশ নায়েক।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. মনিরুজ্জামান, মহিপুর কো-অপারেটিভ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সালাম, এফএইচ অ্যাসোসিয়েশনেরে প্রোগ্রাম ডিরেক্টর মিজানুর রহমান, সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার রিতা বড়ুয়া, সিনিয়র মনিটরিং এন্ড ইভাল্যুয়েশন রিজিওনাল ম্যানেজার এএইটএম কামরুজ্জামান, প্রোগ্রাম ম্যানেজার গৌতম দাস প্রমুখ।

এফএইচ অ্যাসোসিয়েশনের কম্পেহেনসিভ ফ্যামিলি এন্ড কমিউনিটি ট্রান্সফরমেশন প্রকল্পের আওতায় কলাপাড়া উপজেলার মেনহাজপুর হাক্কানী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ফরিদগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চাকামইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মহিপুর কো-অপারেটিভ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ফাতেমা হাই মাধ্যমিক বিদ্যালয়, শিশু পল্লী একাডেমি, তালতলীর নলবুনিয়া আগরপাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কবিরাজপাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নয়াভাই জোরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বথিপাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নাসির উদ্দিন নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসব ওয়াশব্লক নির্মাণ করা হয়েছে।

রিজিওনাল প্রোগ্রাম ম্যানেজার গৌতম দাস জানান, ৪৫ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত প্রতিটি ওয়াশব্লক একই সময়ে ১০ জন ছাত্র-ছাত্রী ব্যবহার করতে পারবে। ভেনটিলেটর, এডজাস্ট ফ্যানসহ এসব ওয়াশব্লকে ছেলে-মেয়েদের জন্য আলাদা আলাদা টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে। মেয়েদের টয়লেটে বক্স, সাবানদানি, কাপড় শুকানোর স্ট্যান্ড স্থাপন করা হয়েছে। নিরাপদ পানির পর্যাপ্ত ব্যবহারের জন্য ৫০০ লিটার ধারণ ক্ষমতার পানির ট্যাংক স্থাপন করা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুমাইয়া, শাহনাজ, কবিতা জানায়, মাসের বিশেষ সময়ে নিরাপদ পরিবেশে পরিচ্ছন্ন হতে না পেরে অনেকেরই বিদ্যালয়ে আসা হয় না। আধুনিক এ ওয়াশব্লক নির্মাণের ফলে আমাদের দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান হয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. মনিরুজ্জামান বলেন, প্রতিটি বিদ্যালয়ে ওয়াশব্লক নির্মাণ করা হলে শিক্ষার্থীরা দুপুরে টিফিনের পর হাত ধৌতকরণসহ বিভিন্ন সংক্রামণ রোগ থেকে মুক্তি পাবে।

মানবকণ্ঠ/আরবি






ads