• শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
  • ই-পেপার
12 12 12 12
দিন ঘন্টা  মিনিট  সেকেন্ড 

সিদ্ধিরগঞ্জে ট্রাকচালক হত্যার রহস্য উদঘাটন

সিদ্ধিরগঞ্জে ট্রাকচালক হত্যার রহস্য উদঘাটন

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:২৮

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ট্রাকচালক হত্যার ঘটনায় চারজন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার পটুয়াখালী ও সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে তাদের আটক করা হয়। সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ সব জানায় পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে নারায়ণঞ্জ ‘ক’ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী জানান, গ্রেফতারকৃতরা পেশাদার ছিনতাই চক্রের সদস্য। এরা বিভিন্ন সময় মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাই করে থাকে। গত ১ জানুয়ারি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল ইউটার্নের সামনে এক ট্রাকচালককে হত্যা করে পালিয়ে যায় তারা। পরর্বর্তীতে ট্রাক চালকের সহযোগীর কাছ থেকে বিস্তারিত জানতে পেরে অপরাধীদের ধরতে কাজ শুরু করা হয়। শুরুতে এই মামলাটির কোনো ক্লু ছিল না। পরবর্তীতে আমরা বিভিন্ন স্থানে অভিযান ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় তাদের অবস্থান সনাক্ত করা হয়।

এ প্রেক্ষিতে গত রোববার মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রুবেল হাওলাদার, উপ-পরিদর্শক সাইদুজ্জামান এবং সহকারী উপ-পরিদর্শক মোমেন আলম পটুয়াখালী থেকে এই হত্যাকাণ্ডের মূল হোতাসহ ২জন এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে ২জনকে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন— পটুয়াখালীর সদর থানার নন্দীপাড়া গ্রামের মৃত হাসান খলিফার ছেলে মূলহোতা লাল মিয়া ওরফে লালু (২৫), নোয়াখালীর চাটখীল থানাধীন মমিনপুর গ্রামের হুমায়ুন কবিরের ছেলে ইয়াছিন ওরফে পপো (১৮), হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থানার পারাজার গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে শাহীন (২৬) ও সিদ্ধিরগঞ্জের রসুলবাগ এলাকার আজিজুল হাকিম ভূঁইয়ার ছেলে নাজমুজ সাকিব ওরফে অনিক (১৫)। তাদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির জন্য সোমবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, ১ জানুয়ারি বুধবার ভোররাতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার শিয়াচর এলাকা থেকে কার্টুন বোঝাই করে একটি ট্রাক আশুলিয়া যাওয়ার উদ্দেশে রওয়ানা হয়। ওই ফ্যাক্টরির ম্যানেজার সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের ইউটার্ন (ডাচ-বাংলা ব্যাংক শাখার সামনে) এলাকায় অপেক্ষা করছিল। ট্রাকচালক ফ্যাক্টরির ম্যানেজারকে ট্রাকে উঠানোর জন্য উক্ত স্থানে আসে। এ সময় ছিনতাইকারীরা ট্রাকচালক সিরাজুল ইসলামের কাছ থেকে টাকা-পয়সা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিতে চাইলে সিরাজুল ইসলাম তাদেরকে প্রতিহত করার চেষ্টা করে। পরে ছিনতাইকারীরে সঙ্গে সিরাজুল ইসলামের ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে ট্রাকচালককে ছুরিকাঘাত করে ছিনাতাইকারীরা পালিয়ে যায়। ট্রাকের হেলপার রাজু চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন এসে চালক সিরাজকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে যায়।

পরে সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের কর্তব্যরত চিকিৎসক সিরাজকে মৃত ঘোষণা করেন।

মানবকণ্ঠ/আরবি




Loading...
ads






Loading...