খুলনায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড


poisha bazar

  • আলমগীর হান্নান, খুলনা ব্যুরো
  • ২৫ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৫৫

খুলনায় স্ত্রী তাসলিমা খাতুনকে হত্যার দায়ে স্বামী হযরত আলী তরফদারকে (৪৩) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে খুলনা জেলা ও দায়রা জজ মশিউর রহমান চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হযরত আলী তরফদার কয়রা উপজেলার উত্তর মদিনাবাদ গ্রামের মৃত বাবর আলী তরফদারের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলা সদরের আব্দুল বারিক গাজীর মেয়ে তাসলিমা খাতুনকে ২০০১ সালে হযরত আলী তরফদার পারিবারিকভাবে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে দুই ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে স্বামী হযরত আলী তরফদার কারণে-অকারণে বিভিন্ন সময় স্ত্রী তাসলিমা খাতুনকে মারধর করতেন। এ বিষয়ে একাধিকবার শালিস হলেও কোন পরিবর্তন হয়নি। ২০১৭ সালের ২৮ মার্চ রাতে তার শ্বাশুড়ী সখিনা খাতুন ঘরের বারান্দায় ঘুমিয়েছিলেন। আর স্ত্রী ও ছোট ছেলে ইমন (৯) ঘরের ভিতর ছিল। এ অবস্থায় হযরত আলী ঘরে প্রবেশ করে স্ত্রীর কাছে অর্থ দাবি করে। এ সময় দুজনের মধ্যে বাক- বিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে হযরত আলী তাকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। এ সময় শিশু পুত্র চিৎকার করলে তাকেও ভয় দেখায় পাষণ্ড পিতা হযতর আলী। এক পর্যায়ে পরণের শাড়ি খুলে স্ত্রী তাসলিমা খাতুনকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে হযরত আলী পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় পরদিন ২৯ মার্চ নিহতের মা সখিনা খাতুন বাদি হয়ে জামাই হযরত আলী তরফদাকে আসামি করে কয়রা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কয়রা থানার এসআই রাজিউল আমিন ২০১৮ সালের ২০ জানুয়ারি আসামি হযতর আলীকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। স্বাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালত উল্লিখিত রায় ঘোষণা করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট এনামুল হক। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. মিকাইল হোসাইন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে






ads