এবার লাগামহীন কাঁচা বাজার

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:৫৪

পেঁয়াজের ঝাঁঝ কিছুটা কমতে না কমতেই দাম বৃদ্ধির পাগলা ঘোড়া এবার সওয়ার করেছে কুমিল্লার কাঁচা বাজারে। কাঁচা বাজারের দাম বৃদ্ধির উত্তাপ যেনো আগুনের উত্তাপকেও হার মানাচ্ছে! ৫০-৬০ টাকার নিচে কোনো সবজিই এখন পাওয়া যাচ্ছে না কুমিল্লার বাজারে।

শ্রমিকদের পরিবহন ধর্মঘটও প্রভাব ফেলেছে সবজির বাজারে। গত দুইদিনের ব্যবধানে কুমিল্লার বাজারে কেজিতে প্রত্যেক সবজির দাম বেড়েছে ১০ থেকে ২০ টাকা করে। গত সপ্তাহের তুলনায় বাজারের শতকরা ৯০ ভাগ সবজির দাম ৬০ থেকে ৭০ টাকা ছাড়িয়েছে। আলু, কাঁচা পেঁপে এবং কাঁচা কলা ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ বাকী সব সবজি কেজিতে ৬০-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে লাগামহীনভাবে সবজির দাম বাড়ায় অস্বস্তিতে ক্রেতা সাধারণ।

তবে কুমিল্লার রাজগঞ্জ, রাণীর বাজার এবং কান্দিরপাড় নিউ মার্কেটের সবজি বিক্রেতাদের দাবি গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে কেজিতে সবজির দাম বাড়ার একমাত্র কারণ পরিবহন ধর্মঘট। ধর্মঘট এবং চালক-শ্রমিকদের আন্দোলনের কারণে দুই-তিন দিন সড়কে গাড়ি চলতে পারেনি। যার কারণে চাহিদার তুলনায় বাজারে আমদানি কম হওয়ায় এই সপ্তাহে বেড়েছে সবজির দাম।

শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে কুমিল্লা নগরীর রাজগঞ্জ ও নিউ মার্কেটসহ বিভিন্ন সবজির বাজার ঘুরে দেখা যায়, গত সপ্তাহে বাজারে শীতকালীন সবজি সিমের দাম ছিল ৫০ টাকা। বর্তমান বাজারে ১০ টাকা বেড়ে সেই সিম এখন ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ঠিক একই অবস্থায় করলা। ৪০ টাকার করলা ৬০ টাকা। ৬০ টাকার গাজর ৮০ থেকে ১১০ টাকা, ৫০ টাকার ঢেঁড়স ৬০ টাকা, ৪০ টাকা থেকে প্রতি পিছ বাঁধা ও ফুলকপি ৫৫ টাকা, ৪০-৫০ টাকার লাউ বাজারে ৬০-৬৫ টাকা, ২৫ টাকার চাল কুমড়া ৪০ টাকা, ৪০ টাকার চিচিঙ্গা (কইডা) ২০ টাকা বেড়ে এখন ৬০ টাকা, ৪৫ টাকার ঝিঙ্গা ৫৫ টাকা, ৪০ টাকার পটল ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে কেজিতে ২০ টাকা বেড়েছে ৬০ টাকার বরবটি ৮০ টাকা, ৪০ টাকার মরিচ ৫০ টাকা, ৫০ টাকার কচুর ছড়া ৭০ টাকা, ৩০ টাকার মুলা ৪০ টাকা, ২০ টাকার কাঁচা পেঁপে ২৫ টাকা, ২৫ টাকার বড় কাঁচা কলা ৩৫ টাকা।

অন্যদিকে বিভিন্ন শাকের মধ্যে লাল, পুঁই ও পালং শাকের দাম কেজিতে বেড়েছে ৫ টাকা। তবে শুধু মাত্র কেজিতে দাম কমেছে বেগুনের।

সবজি ক্রেতা মিজানুর রহমান বলেন, মাস দুয়েক ধরে আমাদের ক্রয় সীমার বাহিরে ছিলো পেঁয়াজ। ৩০ টাকা থেকে দিনে-রাতে হুরহুর করে আড়াইশো টাকায় পৌঁছে পেঁয়াজের দাম। অনেক খুচরা ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ চারদিকে হৈ চৈ শুরু হয় পেঁয়াজ নিয়ে। এখনও বাজারে ১০০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। এরপর শুরু হয় লবণের দাম বাড়া নিয়ে গুজব। চালের বাজারও লাগামহীন। এখন দেখছি সবজির বাজারও লাগামহীন। অন্যান্য বছরগুলোতে এ সময় সকল ধরনের সবজির দাম ছিলো তুলনামূলক হারে খুবই কম। কারণ এই সময়টায় শীতকালীন সবজি বাজারে আসতে শুরু করে। কিন্তু এই বছর দেখছি ঠিক তার উল্টোটা।

নগরীর কান্দিরপাড় নিউ মার্কেটের সবজির খুচরা ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন জানান, সপ্তাহের তুলনায় বাজারে সবজির দাম বেড়েছে। সপ্তাহ খানিক আগে যে সবজিগুলোর দাম ছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কেজিতে ১০-২০ টাকা বেড়ে সেই সবজি ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

হঠাৎ কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বাড়ার কারণ জানতে চাইলে ওই ব্যবসায়ী জানান, গত ৩-৪ দিন যাবৎ সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘট থাকায় বাজারে আমদানি ছিল খুবই কম। ধর্মঘটে চালক ও শ্রমিকদের আন্দোলনের কারণে সড়কে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় চাহিদার তুলনায় বাজারে সবজির আমদানি কম ছিল। যার কারণে এমনটি হয়েছে।

এছাড়াও পরিবহন সংকটের কারণে কৃষকরা উত্তোলনকৃত সবজি আড়তে না আনতে পারায় বিপুল পরিমানের সবজি নষ্ট হয়েছে। এতে করে কৃষক ও চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। অন্যদিকে আমরা চাহিদার তুলনায় সবজি পাইনি।

বাজারে সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কুমিল্লার সহকারী পরিচালক আছাদুল ইসলাম বলেন, শুধু সবজির বাজার নয়, আমরা বাজারের প্রত্যেক দ্রব্যমূল্যের দাম মনিটরিং করে আসছি। কেজিতে ১০-২০ টাকা বেড়েছে সবজির দাম বিষয় আমরা মনিটরিং করে দেখবো। পেঁয়াজ, লবণ, চালসহ প্রত্যেক দ্রব্যমূল্যর দাম নির্দিষ্ট মূল্যের মধ্যে রাখতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নির্দিষ্ট মূল্যের বাইরে অতিরিক্ত মূল্য নেয়ার অভিযোগ আসলেই আমরা বিক্রিত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

মানবকণ্ঠ/আরবি




Loading...
ads





Loading...