জমিজমা সংঘর্ষে অন্তঃসত্ত্বার পেটে রামদার আঘাত!

জমিজমার সংঘর্ষে অন্তঃসত্ত্বার পেটে রামদার আঘাত!
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অন্তঃসত্ত্বা মিতু - দৈনিক মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১০:০৫,  আপডেট: ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৪৯

মাদারীপুর সদর থানার কু‌নিয়া ইউনিয়নের ত্রিভাগদী গ্রামে জমিজমা নিয়ে সংঘর্ষে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ দুজন আহত হয়েছে। আহতরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ভুক্তভোগী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যার সময় ত্রিভাগদী এলাকার মাসুদ কাজি (৫২) একই এলাকায় তার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারির (৪০) সাথে জমিজমা মাপার বিষয় আলাপ করে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে উভয় পক্ষই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

এতে মাসুদ কাজি ও তার ভাগ্নি মিতু আক্তার (২৪) রামদার কোপে আহত হয়। স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করান।

আহত মাসুদ কাজি বলেন, আমাদের সবার বাড়িই পাশাপাশি ও আত্মীয় আমরা। সন্ধ্যার দিকে আমি আমার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারিকে ডেকে জমি মাপের কথা বলি, এতেই আকরাম ক্ষিপ্ত হয়ে খুব গালাগালি করে। এটা শুনে আশপাশের আত্মীয় স্বজনরা ছুটে আসে। ঝগড়াঝাঁটির মধ্যেই আকরাম ও তার অন্য ভাইরা মিলে ঘর থেকে রামদা এনে আমাদের উপর আক্রমণ করে, আমার হাতে পায়ে কোপ দেয়। আমার ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা ভাগ্নিও সেখানে উপস্থিত ছিলো তার পেটে রামদার বাট দিয়ে আঘাত করে।

এ ব্যাপারে আকরাম বেপারি বলেন, মাসুদ কাজি তার বোনের বাড়ি এসে জমিজমার বিষয় নিয়ে আমাকে গালাগালি করে, পরে আমিও গালাগালি করেছি।

পরে সেও রামদা নিয়ে এসেছে আমিও রামদা নিয়ে এসেছি। অন্তঃসত্ত্বা মহিলা কে আঘাত করেছেন কি না? এই প্রশ্নের জবাবে বলেন, মহিলা কে আমি কোন আঘাত করিনি বৃষ্টির কারণে সে পড়ে যেতে পারে।

মিতু আক্তারের বাবা লতিফ হাওলাদার বলেন , আমার অন্তঃসত্ত্বা মেয়েকে ওরা পেটের উপর রামদার বাট দিয়ে আঘাত করেছে ওদের বিচার চাই।

সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ রিয়াদ মাহমুদ বলেন, দুজনেই চিকিৎসাধীন আছে। তবে অন্তঃসত্ত্বা মিতু আক্তারের কথা পরীক্ষা নিরীক্ষা এখনোই কিছু বলতে পারবো না।

মাদারীপুর সদর থানার এসআই খোসরুজ্জামান বলেন অভিযোগ পেয়ে আমরা সদর হাসপাতালে এসেছি তদন্ত করে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads





Loading...