ধামরাইয়ে জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে অবহিতকরণ সভা

ধামরাইয়ে জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে অবহিতকরণ সভা
ধামরাইয়ে জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে অবহিতকরণ সভা - প্রতিবেদক

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:০৯

জলাতঙ্ক নির্মূলের লক্ষ্যে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৮ দিন ব্যাপি কুকুরের টিকাদান ( এমডিভি) কার্যক্রম ও অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহষ্পতিবার (১০ অক্টোবর) ১২ টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: ফজলুর হকের সভাপতিত্বে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে এ অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ধামরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাদ্দেস হোসেন বলেন, জলাতঙ্ক একটি ভয়ংকর মরণব্যাধি, এ রোগে মৃত্যুর হার শতভাগ। বাংলাদেশের সকল জেলায় ৬৬ টি জলাতঙ্ক নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। এ সব কেন্দ্র থেকে আধুনিক ব্যবস্থাপনা ও কুকুরের কামড়ে জলাতঙ্ক নির্মূল করার টিকাদানের ব্যবস্থা আছে। তাই জলাতঙ্ক নিয়ে চিন্তার কিছু নাই।

জলাতঙ্ক নিয়ে ধামরাই পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম কবির বলেন, প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদে কুকুরের টিকাদানের ব্যবস্থা আছে। তাই কুকুর হত্যা না করে তাদের টিকাদানের ব্যবস্থা করুন।

এসময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল হক, বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আহমদ হোসেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: সাইদুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সুপারভাইজার ( সিডিসি)নাদিম মাহমুদ, ডা: মুজিব রহমান, প্রমুখ।

পৃথিবীতে প্রতি বছরে প্রায় ৫৫ হাজার মানুষ জলাতঙ্ক রোগে মারা যায়। এছাড়াও ২৫ হাজার গবাদি পশু এ রোগের শিকার হয়ে থাকে। ২০১০ সালের পূ্র্বে বাংলাদেশে প্রায় ২০০০ লোক মারা যেত এবং ২০১৬ সালের মধ্যে ৯০ ভাগ এই জলাতঙ্ক রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কমিয়ে আনার কার্যক্রম চলছে। ঢাকার মহাখালীতে অবস্থিত বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাতীয় জলাতঙ্ক নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল কেন্দ্র ” সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতাল ” রয়েছে। এখানে প্রায় প্রতিদিন ৪০০-৫০০ জন কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এছাড়াও ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে জলাতঙ্ক মুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তুলা হবে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads




Loading...