সোনাইমুড়ীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, শিশুলীগের অফিস ভাঙচুর


  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ৩০ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৪৩

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে শিপন বাহিনী ও শিশু বাহিনী নামে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় তারা বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করে।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) রাতে উপজেলার কড়িহাঠী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ আগস্ট দেওটি ইউনিয়নের প্রতিশ গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে শিপনকে গাঁজা ব্যবসার সাথে জড়িত থাকায় স্থানীয় শিশুলীগ নামের একটি বাহিনী মারধর করে। পরে তাকে একটি বাড়িতে আটক করে রাখে। এ খবর পেয়ে শিপনের ভাই সায়েদ পার্শ্ববর্তী উপজেলা চাটখিল শাতরাপাড়া থেকে লোকজন নিয়ে শিশুবাহিনীর লোকজনকে পিটিয়ে শিপনকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাতে কড়িহাঠ বাজারে শিপন বাহিনী ও শিশু বাহিনীর মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় শিশু বাহিনীর লোকজন শিপনের লোকজনকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। পরে শিপনের লোকজন শিশু বাহিনীর অফিস ভাঙচুর ও বাজারের বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়।

বাজারের ব্যবসায়ী শাহ আলম জানান, স্থানীয় সন্ত্রাসী শিপনের নেতৃত্বে হাতকাটা সোহাগ, এনামুল, সাহাব উদ্দিনসহ একদল সন্ত্রাসী অন্যায়ভাবে তার দোকানে হামলা চালায়। এতে তার দোকানের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। তিনি তার ক্ষতিপূরণ ও প্রশাসনের কাছে হামলাকারীদের শাস্তির দাবি জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, কড়িহাঠি বাজারের একাংশ চাটখিল উপজেলায় ও একাংশ সোনাইমুড়ীর সীমানায় পড়ায় ছোটখাটো বিষয়কে কেন্দ্র করে কয়েকদিন পরপর এই বাজারে মারামারি হয়। আর এতে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বাজারের ব্যবসায়ীরা।

সোনাইমুড়ী থানার ওসি আব্দুস সামাদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে, যারা মারামারি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মানবকণ্ঠ/এইচকে



poisha bazar

ads
ads