রিফাতের খুনিদের দেশত্যাগ ঠেকাতে লালমনিরহাট বন্দর ও সীমান্তে সতর্কতা

লালমনিরহাট প্রতিনিধি


poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ প্রতিনিধি
  • ২৯ জুন ২০১৯, ১৩:৩৬

বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডে অভিযুক্তরা যাতে ভারত পালিয়ে যেতে না পারে সেই জন্য লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থল বন্দরসহ গোটা সীমান্ত জুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। তাদের দেশ ত্যাগ ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে বিশেষ সতর্ক অবস্থানে।

পুলিশ, বুড়িমারী স্থল বন্দর ও বিজিবি সুত্রে জানা গেছে, বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডে অভিযুক্তরা ভারত পালিয়ে যেতে পারে। লালমনিরহাট সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ার ও জেলায় একটি স্থলবন্দর থাকায় অভিযুক্তরা এ জেলায় অবস্থান নিতে পারে। সেই লক্ষে তাদের ধরতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিশেষ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। এ কারণে বুড়িমারী স্থলবন্দর ও গোটা সীমান্ত জুড়ে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ ও বিজিবি।

বুড়িমারী স্থলবন্দরে ভারতগামীদের বিশেষ তদারকি করে তাদের খোঁজখবর নিয়ে ভারতে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছে। এ সময় স্থলবন্দর কর্মকর্তারা রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডে অভিযুক্তদের ছবির সাথে ভারতগামী যাত্রীর ছবিও মিলিয়ে দেখছেন।

ইতোমধ্যে লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যাকান্ডে অভিযুক্তরা যাতে লালমনিরহাট হয়ে ভারত পালিয়ে যেতে না পারে সেই জন্য সকলের সহযোগিতা চেয়ে তার ফেসবুকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন। সেই স্ট্যাটাস মুহুর্তে ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। অভিযুক্তদের কারো সন্ধান পেলে নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করতে সকলের প্রতি আহবান জানানো হয়। কমেন্টস করে অনেকেই ঘাতকদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক মানবকণ্ঠকে বলেন, বরগুনার হত্যাকান্ডটি খুবই বেদনাদায়ক। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। লালমনিরহাট সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ার ও জেলায় একটি স্থলবন্দর থাকায় অভিযুক্তরা এ জেলায় অবস্থান নিতে পারে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সব থেকে বড় প্রচার মাধ্যম তাই অভিযুক্তদের ছবিসহ প্রচার করা হয়েছে। যাতে তারা আত্মগোপন করার সুযোগ না পায় এবং সাধারণ মানুষ তাদের সন্ধান পেলে পাশ্ববর্তি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে খবর দিতে পারে।

অভিযুক্তদের কেউ সন্ধান পেলে দ্রুত স্থানীয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করতে সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...