শিশুর পেটে আরেক শিশু!


poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১১ মে ২০১৯, ১৭:২৪,  আপডেট: ১১ মে ২০১৯, ১৭:২৮

ঠাকুরগাঁওয়ের সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়ার বাবুল রায়ের ১২ বছরের শিশুকন্যা বিথিকা রায়।  সে স্থানীয় মলানপুকুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী।  হঠাৎ শিশুটির পেট ফুলতে শুরু করে।  ডাক্তাররা প্রথমে ভেবেছিলেন টিউমার।  সেই অনুযায়ী অস্ত্রোপচার শেষে টিউমারটি কেটেও ফেলা হয়।  কিন্তু তারপরই চিকিৎসকের চোখ ছানাবড়া। টিউমারের ভেতরে যে আরেক শিশুর বসবাস!

তার বাবা জানান, গত দশদিন আগে হঠাৎ করেই বিথিকার শারীরিক পরিবর্তন ঘটতে শুরু করে।  তার পেট হঠাৎ করেই ফুলতে থাকে। এতে ঘাবড়ে যান তিনি।  পরে চিকিৎসক প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে জানান বিথিকার পেটে বড় আকারের টিউমার রয়েছে।  যা জরুরি ভিত্তিতে অপারেশন করা প্রয়োজন।

পেশায় দিনমজুর বাবুল রায় মেয়েকে নিয়ে ঠাকুরগাঁও শহরের হাসান এক্স-রে ক্লিনিকে ভর্তি করে ডা. নুরজ্জামান জুয়েলের শরণাপন্ন হন। ডা. জুয়েল ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশন হওয়ায় প্রথমে রাজি হননি। পরে বাবুলের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন।  শুক্রবার বিকেলে অপারেশন করে দেখা যায় শিশুটির পেটে প্রায় চার কেজি ওজনের টিউমার রয়েছে।  অস্ত্রোপচার শেষে টিউমারটি কেটে তার চোখ ছানাবড়া।  টিউমারের ভেতরে আরেক শিশুর বসবাস।  সেখানে শরীরের হাত, কলিজাসহ নানা অংশ বিদ্যমান।

এ ব্যাপারে ডা. মো. নুরজ্জামান জুয়েল বলেন, মেডিকেল সাইন্সে এটাকে বলে বাচ্চার পেটের ভেতরে বাচ্চা।  জন্মগতভাবে বিথিকা জমজ। কিন্তু কোনো কারণবশত আরেক শিশু পৃথিবীর মুখ দেখতে পায়নি।  এটা বিথিকার জন্মের সময় থেকে তার পেটে থেকে যায়। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা ভালো।  আশা করা যায় আর কোনো ঝুঁকি নেই।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ




Loading...
ads






Loading...