করোনায় আগামীর ভাবনা

ভিডিও সম্পাদনা সম্ভাবনাময় ক্যারিয়ার

এম. এ. রশিদ

মানবকণ্ঠ
এম. এ. রশিদ - মানবকণ্ঠ।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৪ মে ২০২০, ১৬:১৪

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে থমকে গিয়েছে পুরো বিশ্ব। বিশ্ব দেখছে নতুন এক স্থবিরতা, নিরবতা। নিরব বিশ্বে আমরা এখন ঘরবন্দী। ঘরে বসেই জীবনযাপন হচ্ছে আমাদের। কিন্তু দীর্ঘ একটা সময় ঘরে থাকার কারণে আমাদের মধ্যে দেখা দিতে পারে একঘেঁয়েমি অলসমস্তিস্কের ক্ষতিকারক প্রভাব। সেই একঘেঁয়েমি ভাব কাটানোর জন্য লকডাউন সময়কে আমাদের যথাযথ কাজে লাগাতে হবে। কেননা লকডাউন পরবর্তী বিশ্ব হবে একদমই নতুন এক বিশ্ব। ধারণা করা হচ্ছে করোনার প্রভাবে বিপুল সংখ্যক লোক কর্মচ্যুত হবেন। তাই আমাদের প্রত্যেককেই আবার নতুন করে নিজেকে নতুন রূপে ক্যারিয়ারকে ডেভেলপ করতে হবে সবার আগে। ক্যারিয়ারকে একধাপ এগিয়ে নিতে ঘরে বসেই আপনি শিখে নিতে পারেন প্রযুক্তি নির্ভর কাজ।

প্রযুক্তির বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে আপগ্রেড করে নিতে পারলে সব সময়ই সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটানো সম্ভব। ভিডিও সম্পাদনা এমন একটি পেশা যেখানে আপনি এ পেশায় জড়িয়ে থাকতে পারবেন। বিশ্বব্যাপী রয়েছে এ পেশায় ক্যারিয়ার গড়ার ক্ষেত্র। খ্যাতি, সুনাম, পরিচিতির সাথে রয়েছে সম্ভবনাময় উজ্জ্বল ভবিষ্যতের হাতছানি। চিত্রগ্রাহকদের ধারন করা ভিডিও ফুটেজ এডিটিং সফটওয়্যারের সাহায্যে কাট ছাট করে দর্শকদের দেখার উপযোগী করে তোলাই ভিডিও সম্পাদকের কাজ।

পড়াশুনা ও অন্যান্য পেশায় থেকেও ভিডিও সম্পাদনা পেশায় নিযুক্ত হয়ে আপনি আয়ের উৎস বাড়াতে পারেন। ভিডিও সম্পাদনার মাধ্যমে আপনার সৃজনশীল কাজ দিয়ে চমকপ্রদ এক ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখতেই পারেন।

বাংলাদেশে এখন প্রায় ৩০-৩৫ টি টিভি চ্যানেল রয়েছে। সবগুলো টিভি চ্যানেলেই প্রয়োজন দক্ষ ভিডিও সম্পাদক। টিভি চ্যানেলগুলোতে সংবাদের পাশাপাশি অসংখ্য অনুষ্ঠান, নাটক, ম্যাগাজিন, বিজ্ঞাপন প্রচারিত হয়। সব অনুষ্ঠান টিভি চ্যানেল ছাড়াও প্রযোজনা সংস্থাও নির্মাণ করে থাকে। তাই ফুলটাইম- পার্টটাইম দু’ভাবেই ভিডিও সম্পাদক হিসেবে কাজ করা যায়। । প্রতিটি চ্যানেলে ২৫ থেকে ৫০ জন ভিডিও সম্পাদক রয়েছে। সেটি জানলে হয়ত চাকুরি পাওয়ার সম্ভাবনাটা অনুধাবন করা সহজ হবে।

একটা চ্যানেলে ৫ ধরনের ক্যাটাগরিতে ভিডিও সম্পাদক নেয়া হয় :

১. ভিডিও সম্পাদক ইনচার্জ, ২. সিনিয়র ভিডিও সম্পাদক, ৩. ভিডিও সম্পাদক, ৪. জুনিয়র ভিডিও সম্পাদক এবং ৫. নতুন যারা আসতে চায় ফ্রেশার বা শিক্ষানবীশ সেখানে শিক্ষানবীশ নিয়োগ দেওয়া হয়।

একজন ভিডিও সম্পাদক মাসিক পারিশ্রমিক হিসেবে শুরুতে ২৫-৩০ হাজার এবং পরবর্তী সময়ে তা ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকাও হতে পারে। যত বেশি চ্যানেল তত বেশি নাটকও সিনেমা আর বিজ্ঞাপন। মাল্টিমিডিয়া জগতে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জ্ঞানের পরিধি যত বিস্তৃত ততো বেশি করে বিস্তার ঘটিয়ে সাফল্য অর্জন করা সম্ভব। তাই আপনার মেধা কাজে লাগিয়ে ভালো কাজ প্রদর্শন করে কাজের শৈল্পিক নান্দনিকতা বাড়াতে এই পেশাটাকে আপন করতে পারেন। বেকারত্ব, হতাশা, দারিদ্রতা শুধুমাত্র কিছুদিনের প্রশিক্ষনে আপনার আগামী জীবন সুন্দর, ভবিষ্যৎ সাফল্য অজর্ন করা সম্ভব।

আপনার চাই স্থির চিন্তা শক্তি ও অটুট অত্মবিশ্বাস। প্রযুক্তি আপনার জন্য; আপনি প্রযুক্তির জন্য।

লেখক- এম. এ. রশিদ : ভিডিও সম্পাদক, দুরন্ত টিভি।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads






Loading...