অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং হিসেবে ক্যারিয়ার


poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ ডেস্ক
  • ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:৫০

বিএসসি অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত চার বছরের অনার্স কোর্স। এই কোর্সে রয়েছে মোট আটটি সেমিস্টার। এখান থেকে সফলভাবে পড়াশোনা শেষ করে আপনি এরোস্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং, এভিওনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং, এয়ারক্রাফট ইঞ্জিনিয়ারিং, এয়ারলাইন্স ইঞ্জিনিয়ারিং, এয়ারপোর্ট ইঞ্জিনিয়ারিং, এয়ারপোর্ট ডিজাইন অ্যান্ড প্ল্যানিং, স্যাটেলাইট, স্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং, রোকেট্রি, রাডার সিস্টেমস, রিমোট কন্ট্রোল সেন্সিং সিস্টেমস, হিউম্যান মেকানিক্স, এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল সিস্টেমস, এয়ারক্রাফট মেইনটেনেন্স ম্যানেজমেন্ট, এয়ারক্রাফট ডিজাইন, রেডিও ইলেকট্রিক্যাল সিস্টেমস, রেডিও টেকনোলজিসহ আরো অনেক বিষয়।

পাশাপাশি আপনি বিসিএস, সরকারি ও বেসরকারি সেক্টরেও কাজ করতে পারবেন। কারণ এখানে আপনি বিএসসি ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ৬০টি ক্রেডিট অধ্যায়ন করবেন যা আপনাকে ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের বিসিএস, সরকারি ও বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং সেক্টরে চাকরি পেতে সুযোগ দেবে।

তাছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের এয়ারলাইন্স এমিরেটস এয়ারলাইন্স, কাতার এয়ারলাইন্স, গালফ এয়ার, কুয়েত এয়ারওয়েজ, ওমান এয়ার, সাউদিয়া এয়ারলাইন্স ও অন্য যে এয়ারলাইন্সগুলো বাংলাদেশে ফ্লাইট অপারেট করে সেগুলোতে রয়েছে কাজ করার সুযোগ। আগ্রহী শিক্ষার্থীদের জন্য এই মুহূর্তে সুখবর হলো বাংলাদেশেও বিএসসি ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং চার বছরের অনার্স কোর্স সম্পন্ন করা যাচ্ছে কলেজ অব এভিয়েশন টেকনোলজিতে (ক্যাটেক)। উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের রোড ২, বাড়ি ১৪-এ গড়ে তোলা হয়েছে কলেজ অব এভিয়েশন টেকনোলজি। আরো জানতে ০১৯২৬৯৬৩৬৫৩ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন।

বিবিএ (অনার্স) ইন এভিয়েশন ম্যানেজমেন্ট হলো অনার্স কোর্স যা মূলত যেকোনো বিভাগ হতে এইচএসসি বা ‘এ’ লেভেল পাস করা শিক্ষার্থীরা করতে পারবে। ৪ বছরে ৮ সেমিস্টার। বিবিএ (অনার্স) ইন এভিয়েশন ম্যানেজমেন্ট ও বিএসসি (অনার্স) ইন অ্যারোনটিক্যাল ও এভিয়েশন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আগ্রহী প্রার্থীকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ অব এভিয়েশন টেকনোলজিতে গিয়ে আবেদন করে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

সিলেট হতে পড়তে আসা মাহফুজ বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই মনে স্বপ্ন ছিল এয়ারলাইন্সে কাজ করার। তাই এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেকে প্রস্তুত করেছি এবং বর্তমানে আমেরিকায় অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার পোস্টে কাজ করছি।’ মিরপুরের শাহেদ বলেন, ক্যাটেকে ভর্তি হয়ে প্রশিক্ষণ সফলতার সঙ্গে শেষ করে আমি এখন জার্মানিতে বিশ্ব বিখ্যাত জার্মান বিমান রক্ষণাবেক্ষণ কোম্পানি হাইটেক এয়ারক্রাফট মেইনটেনেন্স জিএমবিএইচে চার লাখ টাকা বেতনে ফ্রাংকফুর্ট হান বিমানবন্দরে কাজ করছি।’ বর্তমান প্রেক্ষাপটে এই সেক্টরে চাকরির বাজার প্রসারিত হচ্ছে। এভিয়েশন সেক্টরে বিপুল দক্ষ লোকের অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। এভিয়েশনে ক্যারিয়ার গড়ে তোলার এটাই আদর্শ সময়।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...