ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ২ কয়েদির মৃত্যু


  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৪১

কেরানীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুরে স্থাপিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের মানবতা বিরোধী অপরাধের আসামি মো. গিয়াস উদ্দিন খান (৮০) ও ছিনতাই মামলায় ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি মো. শহিদুল ইসলাম বুলবুল ওরফে বাবুল (৪৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে।

সোমবার (২৬শে সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে নয়টায় গিয়াস উদ্দিন খান ও সন্ধ্যা সাতটার দিকে বাবুলের মৃত্যু হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সকাল পৌনে নয়টার দিকে গিয়াসউদ্দিন খান নামের এক আসামিকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসলে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এছাড়াও সন্ধ্যা সাতটার দিকে বাবুল নামের আরও একজন কয়েদিকে জরুরী বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

কারাগারের একটি সূত্রে জানা গেছে, মৃত গিয়াস উদ্দিন ময়মনসিংহের ফুলপুর থানার মাইসুদ্দিন গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিন খানের ছেলে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের একটি মামলায় তিনি ২০১৯ সাল থেকে কারা অন্তরীন ছিলেন। বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগের কারণে এর আগেও কয়েকবার তাকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছিল।

এছাড়াও সন্ধ্যা সাতটার দিকে মারা যাওয়া বাবুল যশোরের কোতোয়ালি থানার নরেন্দ্রপুর গ্রামের আবদুস সালাম মিয়ার পুত্র। সে একটি চুরি ও ছিনতাই মামলায় ২০১৫ সাল থেকে কারাগারে থাকার পর ২০১৮ সালে মামলায় দশ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হন। গত ২১শে সেপ্টেম্বর বুকে ব্যথা অনুভব করায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়েছে।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার সুভাষচন্দ্র বোসের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি।

মানবকণ্ঠ/এমআই


poisha bazar