বঙ্গবন্ধু টুর্নামেন্টের মাঠ অধিগ্রহণ চেষ্টা, এলাকাবাসীর প্রতিবাদ

- ছবি: প্রতিবেদক

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৪:১০,  আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৪:১৯

আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৫টি গ্রামের মানুষের জন্য ২০ বছর আগে করা হয়েছিলো একটি মাঠ। সেখানেই খেলাধুলা করে আশপাশের ৮ এলাকার মানুষ। প্রতিবছর মাঠটিতে আয়োজন করা হয় বঙ্গবন্ধু টুর্নামেন্ট। তবে সম্প্রতি মাঠটি অধিগ্রহণ চেষ্টা করায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী। তারা বলছেন, পাশেই ৪ একর খাস জমি রয়েছে। এছাড়া পূর্বেও একটি জমি আশ্রয়ণ প্রকল্পের জন্য মাটি ভরাট করা হয়েছিলো। সেসব বাদ দিয়ে মাঠ অধিগ্রহণকে অপচেষ্টা ও রাজনৈতিক হীন চেষ্টা বলেও অভিহিত করেছেন স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে ঢাকার ধামরাইয়ের বালিয়া ইউনিয়নের বনেরচর এলাকায় নিজেদের মাঠ বাঁচাতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। এতে স্থানীয় নানা শ্রেণি-পেশার প্রায় ৪শ মানুষ অংশ নেয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ দপ্তর সম্পাদক আব্দুল বাছেদ, বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আলীম, বালিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য এমারত হোসেন।

এসময় বক্তারা জানান, ২০০২ সালে বনেরচরে ৫টি আশ্রয়ণ প্রকল্প গড়ে তোলা হয়। ওইসময় স্থানীয়দের দাবিতে তৎকালীন এমপি, ইউএনও, এসি ল্যান্ড বনেরচরের (এসএ-১৬৬০ ও আরএস-১৪১৯) এই জমিটি মাঠের নামে বরাদ্দ দেন। এরপর থেকে গত ২০ বছরে আশপাশের অন্তত ৮ এলাকায় কয়েকশ ছেলেমেয়ে ও বনেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এই মাঠে খেলাধুলা করে। এছাড়া প্রতিবছর এই মাঠে আয়োজন করা হয় বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্ট।

মানববন্ধনে বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আলীম বলেন, বনেরচরের এই মাঠটিতে আশপাশের অন্তত ৮টি গ্রামের ছেলেরা খেলাধুলা করে। আমরা প্রতিবছর টুর্নামেন্ট আয়োজন করি। অথচ প্রশাসন এখানে নতুন করে আশ্রয়ণ প্রকল্প করতে চাচ্ছে।

তিনি বলেন, ২০০২ সালে বনেরচরেই আরেকটি আশ্রয়ণ প্রকল্প করার কথা ছিলো। সেজন্য সেখানে মাটি ভরাটও করা হয়েছিলো। এছাড়া মাঠের পাশেই প্রায় ৪ একর খাস জমি রয়েছে। সেসব জায়গায় না গিয়ে মাঠ দখলের চেষ্টা করা হচ্ছে। কিছু ব্যক্তি নিজের রাজনৈতিক কারণে এ ঘটনা ঘটাচ্ছেন। তবে এই ঘটনাকে প্রতিরোধ করা হবে। পুরো এলাকাবাসী নিজেদের মাঠ রক্ষায় প্রয়োজনে সড়কে নামবেন।

এতে বালিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও মাঠ কমিটির সভাপতি এমারত হোসেন বলেন, আমাদের কয়েকটি গ্রামের জন্য এই একটাই মাঠ। আশ্রয়ণ প্রকল্পের জন্য আরো জমি রয়েছে। আমরা নতুন প্রকল্প সেখানে বাস্তবায়নের জন্য আবেদন করেছি। ভরাট করা জমি, খাস জমি রেখে মাঠ দখল করে আমাদের ছেলেমেয়েদের বিনোদনের জায়গা যেনো নষ্ট না করা হয় সেই দাবি জানিয়েছি। এজন্য আজ মানববন্ধন করেছি। ভবিষ্যতে প্রয়োজনে আরো কঠোর ব্যবস্থায় যাবো।

এ বিষয়ে জানতে ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামিউল হককে ফোন করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

মানবকণ্ঠ/এসকে






ads