• বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • ই-পেপার

টিএসসিতে নারীদের ওয়াশরুমে মদ্যপ ছাত্রলীগ নেতার কাণ্ড


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৮ আগস্ট ২০২২, ২০:২৬

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) নারীদের জন্য নির্ধারিত ওয়াশরুমে ঢুকে মদ্যপ অবস্থায় হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার নাম তানজিন আল আলামিন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের উপসংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক।

বুধবার সন্ধ্যায় এই ঘটনায় ভুক্তভোগী এক ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমানের কাছে বিচার চেয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগপত্রে ভুক্তভোগী ছাত্রী উল্লেখ করেন, ‘গত ১৭ আগস্ট রাত আনুমানিক ৮টা ২০ মিনিটে আমি টিএসসিতে নারীদের জন্য নির্ধারিত ওয়াশরুম ব্যবহারকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তানজিন আল আলামিন মদ্যপ অবস্থায় নারীদের ওয়াশরুমে প্রবেশ করে একটি টয়লেটের দরজা খোলা রেখে অর্ধনগ্ন হয়ে মূত্রত্যাগ করতে থাকে এবং আমার দিকে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে। আমি প্রচণ্ড ভীত ও উদ্বিগ্ন হওয়ার পরেও ওই ব্যক্তি বের হয়ে চলে যাওয়ার সময় আমি এবং আমার বন্ধুরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে সে এলোমেলো কথা, তাচ্ছিল্যের সুরে বলতে থাকে। উপরন্তু তার ভুল স্বীকার করে না এবং তার সঙ্গে থাকা আরও কয়েকজনসহ দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে চলে যায়।’

‘এমতাবস্থায় আমি তার দ্বারা হওয়া হয়রানি ও হুমকির প্রেক্ষিতে অনিরাপদ বোধ করছি এবং মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি। ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ তদারকির মাধ্যমে দোষী ব্যক্তি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি চেয়ে বিচার প্রার্থনা করছি।’

এ বিষয়ে তানজিন আল আলামিন জানান, আমাদের মধ্যে একটি ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে। আমি মীমাংসা করার চেষ্টা করছি।

ভুক্তভোগী ছাত্রী জানান, আমি আমার সঙ্গে ঘটা এ ঘটনার বিচার চাই। আমি এখনো মানসিক ট্রমার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। আজকে আমাদের ছুটির দিন হওয়ায় আমি মেইলের মাধ্যমে অভিযোগপত্র সাবমিট করেছি। আগামীকাল (শুক্রবার) আমি সরাসরি লিখিত অভিযোগ দেব। অভিযুক্ত এখনো আমাকে বিভিন্নভাবে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করছে।

সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘ভুক্তভোগীর কাছ থেকে অভিযোগ পেয়েছি। এ ধরনের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।’


poisha bazar