এসএসসি পরীক্ষা আগস্টে


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ জুলাই ২০২২, ১৬:১৮,  আপডেট: ০৩ জুলাই ২০২২, ১৬:২৩

দেশের বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বন্যার কারণে আটকে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আগামী আগস্ট মাসে এই পরীক্ষা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্তঃবোর্ড।

রোববার (৩ জুলাই) আন্তঃবোর্ডের এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান তপন কুমার সরকার।

চেয়ারম্যান বলেন, সিলেট অঞ্চলের যে অবস্থা, সেখানে এখনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরীক্ষা আয়োজনে উপযুক্ত নয়। সেই কারণে এখনই কোনো তারিখ আমরা বলতে চাই না।

তবে ঈদের পর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ করা হবে বলে জানান তিনি।

সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হওয়ায় সব শিক্ষাবোর্ডের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করা হয় গত ১৭ জুন। ১৯ জুন থেকে এই পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, এ বছর সাধারণ নয়টি বোর্ডের অধীনে ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। এর বাইরে দাখিলে দুই লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনালে এক লাখ ৬৩ হাজার ৬৬২ জন অংশগ্রহণ করবে। এবার দেশের ২৯ হাজার ৫৯১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করবে।

চলতি বছর ঢাকা বোর্ডের আওতায় মোট পরীক্ষার্থী তিন লাখ ৯৪ হাজার ৯৯৮ জন। এছাড়া রাজশাহীতে এক লাখ ৯৬ হাজার ৬০০ জন, কুমিল্লায় এক লাখ ৮৮ হাজার ৭১৪ জন, যশোরে এক লাখ ৭০ হাজর ৩৭৭ জন, চট্টগ্রামে এক লাখ ৪৯ ৭১০ জন, বরিশালে ৯৫ হাজার ৯৭৬ জন, সিলেটে এক লাখ ১৬ হাজার ৪২৭ জন, দিনাজপুরে এক লাখ ৭৩ হাজার ৯৬১ জন এবং ময়মনসিংহে এক লাখ ১২ হাজার ৯৪৮ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। সব মিলে নয় বোর্ডের অধীনে মোট ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ৭১১ জন অংশগ্রহণ করবে।

মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে নয় হাজার ৯৩টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। মোট ৭১৫টি কেন্দ্রে দুই লাখ ৬৮ হাজার ৪৯৫ জন অংশ নেবে। আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে মোট দুই হাজার ৮১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। দেশের ৮২৮টি পরীক্ষাকেন্দ্রে মোট এক লাখ ৫৩ হাজার ৬৬২ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে।

দেশের বাইরে আটটি দেশে এই পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। এর মধ্যে জেদ্দায় ৭০ জন, রিয়াদে ৪৮ জন, ত্রিপলিতে চারজন, দোহাতে ৬৮ জন, আবুধাবিতে ৫৯ জন, দুবাইয়ে ৩১ জন, বাহরাইনে ৫৩ জন এবং ওমানে ৩৪ জনসহ মোট ৩৬৭ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এআই


poisha bazar