‘প্রকৌশলীদের অবদান ব্যতিত উন্নয়ন ও অগ্রগতি সফল হতো না’

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০:৩৬

বাংলাদেশ এখন স্বল্পোন্নত দেশ নয়, বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয়ের দেশ। মাত্র সাড়ে ১০ বছরে যে পরিমাণ জিডিপি বেড়েছে তা সত্যিই বিস্ময়কর। এই উন্নয়ন ও অগ্রগতি প্রকৌশলীদের অবদান ব্যতিত কখনোই সফল হতো না। প্রত্যেকেটা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে প্রকৌশলীদের ভূমিকা অপরিসীম। চুয়েট বিগত ৫১ বছরের পথচলায় বহু প্রকৌশলী তৈরি করেছে। যারা দেশের উন্নয়নে অবদান রাখার পাশাপাশি বিদেশেও বিভিন্ন ক্ষেত্রে রেখে যাচ্ছে। তারাও দেশের উন্নয়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার।

শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর ৫০ বছর পূর্তিতে সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

দুইদিনব্যাপী সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দিন।

চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর মোহাম্মদ রফিকুল আলমের সভাপতিত্বতে ও যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক সজল চন্দ্র বনিক, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক আয়শা আখতার ও যন্ত্রকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সানাউল রাব্বীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন নির্বাহী কমিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম ও সদস্য সচিব মোহাম্মদ মশিউল হক, প্রাক্তন ছাত্র সমন্বয় ও র‌্যালি উপকমিটির সভাপতি কাজী দেলোয়ার হোসেন ও সদস্য সচিব জি.এম. সাদিকুল ইসলাম, চুয়েট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কবির আহমদ ভুঁঞা, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন ও অর্থ কমিটির সভাপতি ফিরোজ খান নুন ফারাজী, সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন পরিষদ, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সভাপতি মোহাম্মদ হারুন ও সাধারণ সম্পাদক প্রবীর সেন উপস্থিত ছিলেন।

মানবকণ্ঠ/আরবি





ads






Loading...