বঙ্গবন্ধু হত্যা ও ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স নিয়ে ঢাবিতে নাটক

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিনিধি

poisha bazar

  • ঢাবি প্রতিনিধি
  • ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২১:১০

সর্বসাধারণের কাছে সহজভাবে ইনডেমনিটির কালো অধ্যায় তুলে ধরার জন্য ‘ইনডেমনিটি’ নাটকের আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নাটকটি প্রদর্শণ করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। নাটকটি প্রদর্শনীর সময় নাট্যকর্মী, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীসহ বহু দর্শক উপস্থিত ছিলেন।

সর্বসাধারণের কাছে সহজভাবে ইনডেমনিটির কালো অধ্যায় তুলে ধরার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে প্রতিটি অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে সংগঠনটি।

নাটকটিতে দেখানো হয় কিভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হয় এবং হত্যার পর ‘ইনডেমনিটি’ বা ‘দায়মুক্তি’ অধ্যাদেশের মাধ্যমে ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ সালে হত্যাকাণ্ডকে কিভাবে বৈধতা দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারের হত্যার মাত্র ৪১ দিন পর ২৬ সেপ্টেম্বর জারি করা হয় ‘ইনডেমনিটি’ বা ‘দায়মুক্তি’ আইন অধ্যাদেশ। যার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকাণ্ডের বিচার চাওয়ার পথও বন্ধ করে দেয়া হয়। এই অধ্যাদেশকে আরো পাকাপোক্ত করার জন্য এবং হত্যাকারীদের চিরতরে বাঁচাতে ১৯৭৯ সালের ৯ জুলাই জিয়াউর রহমান ৫ম সংশোধনী এনে এটিকে আইনে রূপান্তর করেন।

এই আইনে আরো বৈধতা দেয়া হয় ১৫ আগস্ট, ১৯৭৫ থেকে ৯ এপ্রিল, ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত সকল অবৈধ হত্যা, গুম ও ক্ষমতার। জাতীয় চার নেতার হত্যা থেকে শুরু করে হাজারো মুক্তিযোদ্ধা, সেপাহি, আর্মি, নৌ-অফিসারদের হত্যার বিচার থেকে বঞ্চিত হয় স্বজন ও সর্বোপরি সকল বাংলাদেশি। ১৯৯৬ সালের ১২ নভেম্বর এই কলঙ্ক থেকে মুক্তি দিতে সংবিধানের ‌‌‘ইনডেমনিটি’ আইন বাতিল করা হয়। যা দেশ ও জাতির এক ভয়ঙ্কর কালিমা থেকে মুক্তির দ্বার উন্মোচন করে।

মানবকণ্ঠ/আরবি





ads







Loading...