'বড় ভাইদের' না জানিয়ে ক্রিকেট খেলায় সংঘর্ষ, জরুরি বিভাগে ১৫


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৬ জুলাই ২০১৯, ১৩:৪৬,  আপডেট: ০৬ জুলাই ২০১৯, ১৩:৫৩

তারা ক্রিকেট খেলবেন। আয়োজন করা হয়েছে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচের। কিন্তু জানানো হয়নি 'বড় ভাইদের'। আর এতেই মাঠে ব্যাট বলের লড়াইয়ের পরিবর্তে ধুন্ধুমার 'লড়াই' বেঁধে গেলো ঢাকা মেডিকেল কলেজের দু' দল শিক্ষার্থীর মধ্যে।

শুক্রবার ( ৫ জুলাই) সংঘর্ষের এই ঘটনা ঘটেছে কলেজের শহীদ ডা. ফজলে রাব্বি ছাত্রাবাসের শিক্ষার্থীদের মধ্যে। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। তাঁরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি আছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার সকালে ছাত্রাবাসের মাঠে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের (৭৬তম ব্যাচ) দুটি অংশের মধ্যে একটি প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল। পূর্বনির্ধারিত এই ম্যাচ শুরুর আগেই একটি অংশ খেলতে অস্বীকৃতি জানান। তাঁরা অভিযোগ করেন, ম্যাচ আয়োজনের ব্যাপারে কলেজ প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনার সময় তাঁদের পক্ষের ‘বড় ভাইদের’ ডাকা হয়নি। এ নিয়ে কথা-কাটাকাটির জেরে একটি অংশ আরেকটি অংশকে মারধর করেন।

সকালের মারধরের ঘটনার পর দুপুরের দিকে প্রথম বর্ষের ওই শিক্ষার্থীদের দুই অংশের ‘বড় ভাইদের’ মধ্যে ছাত্রাবাসের ভেতরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ও সংঘর্ষ হয়। এক পক্ষের সদস্যরা অন্য পক্ষের সদস্যদের লাঠিসোঁটা দিয়ে মারধর করেন। এ সময় তাঁরা আবাসিক কক্ষ ভাঙচুর করেন।

দুই অংশের ‘বড় ভাইই’ ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এবং মেডিকেল শাখা ছাত্রলীগের শীর্ষ পদপ্রত্যাশী। একটি অংশের নেতৃত্বে আছেন ঢাকা মেডিকেলের ৬৯তম ব্যাচের ছাত্র রাজিবুল কাওনাইন, আরেকটি অংশে আছেন ৭২তম ব্যাচের জাকিউল ইসলাম।

প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের যে অংশটি সকালে খেলতে অস্বীকৃতি জানিয়ে অন্য অংশকে মারধর করেন, তাঁরা রাজিবুল কাওনাইনের অনুসারী। রাজিবুল ও জাকিউলের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁদের পাওয়া যায়নি।

মানবকণ্ঠ/এইচকে



poisha bazar

ads
ads