স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান': জাতীয় ক্যাম্প ১৪-১৬ মে


poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ মে ২০১৯, ২০:০৫

৪০ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বাছাইকৃত ১২০ দল নিয়ে আগামী ১৪-১৬ মে অনুষ্ঠিত হবে দেশের সর্ববৃহৎ উদ্যোক্তাদের আসর 'স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান'-এর জাতীয় ক্যাম্প। আইসিটি ডিভিশনের আইডিয়া প্রকল্প ও সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইয়াং বাংলার যৌথ উদ্যোগে চলছে এই আয়োজন।

'আমার উদ্ভাবন, আমার স্বপ্ন'- এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশের আট বিভাগের ৪০ বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজন করা হয় ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’-এর বিশ্ববিদ্যালয় পর্ব। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব শিক্ষার্থী ছাড়াও অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও অনলাইন রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতার জন্য আবেদন করেন। সারাদেশ থেকে প্রায় ২ হাজারের বেশি তরুণ উদ্যোক্তা বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ইয়াং বাংলার ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসেডরদের সহায়তায় পরিচালিত প্রতিযোগিতা থেকে বিজয়ী দল বাছাই করা হয়। এই ৪০ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আসা ১২০ দল নিয়ে প্রথমবারের মত ‘জাতীয় স্টার্টআপ ক্যাম্প’ অনুষ্ঠিত হচ্ছে সাভারে। সেখান থেকে বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার ৩০ স্টার্টআপ। আইডিয়া প্রকল্পের বাছাই কমিটি এবং অন্যান্য বিচারকদের সাহায্যে ১০ স্টার্টআপ জাতীয় পর্যায়ে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হবে। এই দলগুলো নিজেদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অর্থ ও পরামর্শসহ যাবতীয় সহায়তা পাবে আইডিয়া প্রকল্প থেকে। আর সেই সাথে তারা ব্যবহার করতে পারবে দেশের সর্ববৃহৎ তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলার নেটওয়ার্ক।

১৩ মে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতার জাতীয় ক্যাম্পের কার্যক্রম শুরু হবে। ১৪মে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে অংশগ্রহণ করা দলগুলোকে নিজ নিজ উদ্যোগ নিয়ে সফলতার সাথে পিচিং দেয়ার জন্য প্রদান করা হবে প্রশিক্ষণ। ১৫মে আরো কিছু বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান ও দলগুলোকে নিজেদের গুছিয়ে নেয়ার সময় দেয়া হবে। এরপর পিচিং শেষে বাছাই করা হবে শীর্ষ ৩০ দলকে। সর্বশেষ ১৬ মে শীর্ষ ৩০ বাছাইয়ের পিচিং শেষে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় থেকে আসা জাতীয় ক্যাম্পের শীর্ষ ১০ বিজয়ীকে বাছাই শেষে সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পুরষ্কার তুলে দেয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে আইডিয়া প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে অনেক নতুন নতুন উদ্ভাবনী ভাবনা থাকে। এবারের আয়োজনে তা আরো একবার প্রমাণ হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য অনুসারে, যে সব স্টার্টআপ-এর প্রডাক্ট ভ্যালু আছে, তাদের জন্য কোটি টাকা সিডি মানি দিয়ে বিনিয়োগ করতে প্রস্তুত আছে স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড। সুতরাং বিজয়ী ১০ দল ছাড়াও আরো ২০টি দলকে আমরা তৈরি করে নিয়ে ফান্ড দিতে পারি। এ ছাড়াও যদি এখান থেকে আরো বেশি দল তাদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে পারে, তাহলে তাদেরকেও পর্যায়ক্রমে আমরা স্টার্টআপ বাংলাদেশের সাথে যুক্ত করব।

বরাবরই দেশ গঠনে তারুণ্যের উদ্যোগকে সম্মানিত করে আসছে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)-এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ও তারুণ্যের সর্ববৃহৎ প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা। এই আয়োজন প্রসঙ্গে সিআরআই-এর কো অর্ডিনেটর তন্ময় আহমেদ বলেন, দেশ গঠনে তরুণদের উদ্যোগের স্বীকৃতি দিয়ে আসছে ইয়াং বাংলা। এবার তরুণ মাঝে লুকিয়ে থাকা উদ্ভাবনী শক্তিগুলোকে খুঁজে বের করার জন্য আইসিটি ডিভিশনের সাথে যৌথ উদ্যোগে কাজ করে যাচ্ছে ইয়াং বাংলা। আশা করছি ভবিষ্যতে আরো বড় পরিসরে এই কার্যক্রম পরিচালিত করতে পারব আমরা।




Loading...
ads






Loading...