স্বজনদের নামে প্লট-ফ্ল্যাট আল-আরাফাহ’র ৩ কর্মকর্তার


poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০৪

জাল দলিলে ভুয়া মর্টগেজ (বন্ধক) দিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের খিলক্ষেত শাখার প্রভাবশালী তিন কর্মকর্তা এখনো বহাল তবিয়তে আছেন। তাদের দাপটে তটস্থ থাকেন ব্যাংকটির প্রধান কার্যালয়ের অনেক দায়িত্বশীলও। এসব ঋণের কমিশনে তারা রাজধানীতে স্বজনদের নামে কিনেছেন প্লট-ফ্ল্যাট। অর্থ লগ্নি করেছেন বিভিন্ন ব্যবসায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বিদেশে টাকা পাচার সিন্ডিকেটের মূল হোতা হলেন এই তিন কর্মকর্তা। বেসরকারি ছয় থেকে সাতটি ব্যাংক থেকে গত কয়েক বছরে যত টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে সব এই তিন কর্মকর্তার হাত ধরে। এরা হলেনÑম্যানেজার জাহিদ হোসেন, সেকেন্ড অফিসার মাসুদ পারভেজ ও সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার আবু নাঈম। তাদের সিন্ডিকেটে রয়েছেন বিভিন্ন ব্যাংকে কর্মরত একাধিক লোক।

সূত্রমতে, এই তিন কর্মকর্তার ঋণ সিন্ডিকেটে অনেকটা ঝুঁকির মধ্যে পড়ে গেছে আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক। বিষয়টি ব্যাংকের তদারকি সংস্থার নজরে থাকলেও অজ্ঞাত কারণে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

জাল দলিলের মাধ্যমে ভুয়া মর্টগেজ দিয়ে ব্যাংকটির খিলক্ষেত শাখা থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে। যা আদায় এখন দুরূহ হয়ে পড়েছে। তাদের দাপটের কারণে ব্যাংকের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে বিষয়টি তদন্তেরও কোনো উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না।

এদিকে ঝুঁকির মধ্যে পড়ায় ব্যাংকটির গ্রাহকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। অনেক গ্রাহক তাদের আমানত খোয়া যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছেন। উদ্বিগ্ন গ্রাহকদের নানা কৌশলে শান্ত রাখার চেষ্টা করছেন ব্যাংক কর্মকর্তারা।

সূত্র জানায়, মর্টগেজ জালিয়াত চক্রের মূলহোতা ব্যাংকের এই শাখার শীর্ষ তিন কর্মকর্তা। নানা কৌশলে সিন্ডিকেট করে জাল দলিলপত্র দিয়ে ব্যাংকটি থেকে কয়েক হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে বিদেশে পাচার করার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

 





ads







Loading...