চোখ থেকে ২০টি জ্যান্ত কৃমি উদ্ধার


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৪ নভেম্বর ২০২০, ১৮:৩১

চোখের রোগ সব সময়ই ছিল। তবে ইদানিং চোখের সমস্যা দিনদিন বাড়ছে। শুধু মানুষের চোখের সমস্যাই নয়। সারাক্ষণ স্মাটফোন ব্যবহার করে চোখের রোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে বৃদ্ধ ও শিশুদের এই রোগে মারাত্মক আকার ধারণ করছে। চোখের সমস্যা নিয়ে বেশ কয়েক মাস ভুগছিলেন চীনের সুঝৌ প্রদেশের বাসিন্দা ওয়ান।

কিন্তু প্রথমে তিনি মনে করেন ক্লান্তি বা অন্য কোনো সাধারণ কারণে এমন সমস্যা হচ্ছে। গোড়ার দিকে তেমন আমলে নেননি। কিন্তু হঠাৎই চোখে যন্ত্রণা শুরু হয়। এর পরে স্থানীয় হাসপাতালে যান তিনি। আর তারপরই জানা যায় চোখে বাসা বেঁধেছে কৃমি।

চীনের সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ডান চোখের যন্ত্রণা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর জানা যায় ওয়ানের চোখে কৃমির বাসা। পরীক্ষা করার পর চিকিত্সকরা সেই কৃমি বের করার উদ্যোগ নেন। অপারেশন থিয়েটারে ওয়ানের চিকিত্সার গোটা পর্ব ক্যামেরাবন্দি হয়। পরে যা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে দেখা যায়, ৬০ বছর বয়সী ওয়ানের ডান চোখের পাতার নিচ থেকে একে একে কৃমি বের করে আনছেন চিকিত্সকরা। একটি একটি করে কৃমি বের করে কাচের পাত্রে রাখা হচ্ছে। আর সেখানে কৃমিগুলো রীতিমতো নড়াচড়া করছে। অর্থাৎ তখনো সবগুলো জীবন্ত ছিল। মোট ২০টি কৃমি বের হয় ওয়ানের চোখ থেকে।

চিকিৎসকরা ওয়ানের সঙ্গে প্রথমবার কথা বলার সময় জানতে চান, তার বাড়িতে কোনো পোষাপ্রাণী রয়েছে কি না। ওয়ানের বাড়িতে কোনো পোষাপ্রাণী না থাকলেও তিনি যেখানে ব্যায়াম করতে যান, সেখানে কয়েকটি পশুর সঙ্গে অনেকটাই সময় কাটান।

চিকিৎসকদের বক্তব্য, কখনো কখনো পশুদের থেকেও কৃমি মানুষের শরীরে চলে আসে। আর ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যেই বংশ বিস্তার করে ফেলে। ওয়ানের ক্ষেত্রেও এমনটা হয়ে থাকতে পারে। সূত্র: আনন্দবাজার



poisha bazar

ads
ads