‘ট্যাঙ্কারে হামলার সঙ্গে এক বা একাধিক দেশ জড়িত’

মানবকণ্ঠ
ছবি - সংগৃহীত।

poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ ডেস্ক
  • ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৫০

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাভেদ জারিফ বলেছেন, ইরানের তেল ট্যাঙ্কারে হামলার সঙ্গে এক বা একাধিক দেশ জড়িত রয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমরা যেসব তথ্য পেয়েছি তাতে দেখা যাচ্ছে সাবিতি নামের তেল ট্যাঙ্কারে এক বা একাধিক দেশ হামলা চালিয়েছে। তবে এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। শত ভাগ নিশ্চিত না হয়ে আমরা কোনো দেশকে অভিযুক্ত করব না।

জারিফ আরো বলেন, ইরানি তেল ট্যাঙ্কারে হামলার ঘটনাটি জটিল। এখানে রাষ্ট্রীয় সম্পৃক্ততা রয়েছে। রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে হামলা হয়েছে এবং অন্য রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে তাতে সহযোগিতা করা হয়েছে। এদিকে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবরাজের ভাইয়ের গোপনে ইরান সফরের খবরকে নাকচ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ। তিনি বলেছেন, এ বিষয়ে তদন্ত করেছি, এ খবরের সত্যতা নেই। সম্প্রতি লোহিত সাগরে ইরানি তেল ট্যাঙ্কারে হামলা হয়েছে। দু’টি ক্ষেপণাস্ত্রের সাহায্যে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার ইরানি তেল ট্যাঙ্কারকে সাহায্য করার আবেদনে আশপাশের কোনো সমুদ্রবন্দর সাড়া দেয়নি বলে জানিয়েছে তেহরান। ইরান বলেছে, এটি আন্তর্জাতিক রীতিনীতি এবং মানবীয় মূল্যবোধের পরিপন্থী ঘটনা। হামলার সময় ইরানি তেল ট্যাঙ্কারটি সৌদি আরবের জেদ্দা সমুদ্রবন্দর থেকে ৬০ মাইল দূরে ছিল এবং জেদ্দা ছিল জাহাজটির সবচেয়ে কাছের বন্দর। এরপর সৌদি কোস্ট গার্ড শনিবার দাবি করে, তারা ইরানি তেল ট্যাঙ্কারের ক্যাপ্টেনের কাছ থেকে সাহায্যের আবেদন পাওয়ার পর এটির সাহায্যে এগিয়ে যেতে চেয়েছিল। এ দাবি সম্পর্কে ইরানের বন্দর ও জাহাজ চলাচলবিষয়ক সংস্থা রোববার এক বিবৃতিতে বলেছে, জাহাজটি শনিবার গ্রিনিচমান সময় ৫টা ১১ মিনিট থেকে ৭টা ২০ মিনিট পর্যন্ত ১৬ বার আশপাশের বন্দরগুলোর কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে।

ওই সংস্থা আরো বলেছে, কারো কাছ থেকে সাহায্যের আশ্বাস না পেয়ে জাহাজটির ক্যাপ্টেন গ্রিনিচমান সময় ৮টা ২০ মিনিটে সৌদি আরবের জেদ্দা, মিশর ও সুদানের উদ্ধার কর্তৃপক্ষের কাছে ই-মেইল পাঠান। ওই ই-মেইলে তিনি জানান, তার জাহাজটি সম্ভবত সন্ত্রাসীদের দুটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার হয়েছে; কাজেই তার জরুরি সাহায্যের প্রয়োজন।

ইরানের বন্দর ও জাহাজ চলাচলবিষয়ক সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়, এরপর ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজটির সবচেয়ে নিকটবর্তী বন্দর সৌদি আরবের জেদ্দায় ইরানের পক্ষ থেকে বারবার সাহায্যের আবেদন জানানো সত্ত্বেও তারা সাড়া দেয়নি। সর্বশেষ পাওয়া খবরে জানা গেছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত তেল ট্যাঙ্কারটি ইরানে ফিরে আসছে।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads





Loading...