যে প্রতিবাদ জানাতে জনসম্মুখে ন্যাড়া হচ্ছেন দক্ষিণ কোরিয়ার রাজনীতিকরা

মানবকণ্ঠ
প্রেসিডেন্টের বাসভবনের বাইরে বসে হোয়াং কিও-আন তার মাথা ন্যাড়া করেন - ছবি: এএফপি।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:০০,  আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:১৬

দক্ষিণ কোরিয়ার যেসব রাজনীতিক সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জাানিয়ে জনসমক্ষে মাথার চুল কামাচ্ছেন তাদের মধ্যে সবশেষ যোগ দিয়েছেন দেশটির বিরোধী নেতা। সোমবার সন্ধ্যায় প্রেসিডেন্ট ভবনের সামনে দেশটির বিরোধী নেতা হোয়াং কিও-আন্ সমর্থক ও সাংবাদিকদের সামনে তার মাথার চুল পুরো ফেলে দেন।

তাদের প্রতিবাদের লক্ষ্যবস্তু দেশটির নতুন বিচারমন্ত্রী চো কুক, যার পরিবার দুর্নীতিগ্রস্ত বলে অভিযোগ রয়েছে।

একই কারণে প্রতিবাদ জানিয়ে গত সপ্তাহে মাথা পুরো ন্যাড়া করে ফেলেন দুজন নারী সাংসদ।এই তিনজন রাজনীতিকই রক্ষণশীল রাজনীতির প্রতিনিধিত্ব করেন এবং তারা প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইনের বর্তমান সরকারের বিরোধী। তারা চান মি. চু হয় পদত্যাগ করুন নয়ত তাকে বহিষ্কার করা হোক।


কিন্তু প্রতিবাদের কারণ কী?

চো কুক প্রাক্তন আইনের অধ্যাপক এবং মি. মুনের সহযোগী। গত সপ্তাহে তাকে বিচারমন্ত্রীর পদে বসানো হয়।

তার সমালোচকরা ক্ষুব্ধ কারণ তার বিরুদ্ধে শিক্ষাখাতে জালিয়াতির চলমান অভিযোগ এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে আর্থিক অপরাধের অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও মি. মুন তাকে এই পদের জন্য মনোনয়ন করেছেন।

তার স্ত্রীও একজন অধ্যাপক এবং তাদের মেয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে এবং স্কলারশিপ পাওয়ায় সাহায্য করার জন্য নথিপত্র জাল করার অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ।

কৌঁসুলিরা তদের আরেক আত্মীয়ের বিরুদ্ধে সন্দেহজনক একটি ইকুয়িটি ফান্ডে অর্থ লগ্নির ব্যবসার অভিযোগ তদন্ত করে দেখছেন। সাম্প্রতিক কয়েক সপ্তাহে কৌঁসুলিরা চো কুকের পরিবারের সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন স্থানে বেশ কয়েকবার হানা দিয়েছেন।

গত শুক্রবার মি: চো-র নতুন পদগ্রহণের বিষয়টি যখন নিশ্চিত করা হয় তখন তিনি তার কন্যার বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ সুবিধা পাবার অভিযোগ নিয়ে ''তরুণ প্রজন্মের কাছে গভীর দু:খ প্রকাশ'' করেন।

প্রেসিডেন্ট মি: মুন জোর দিয়ে বলেন যে কোনরকম অবৈধ কার্যকলাপের সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি। তিনি বলেন শুধু অভিযোগের ভিত্তিতে কাউকে নিয়োগ করা থেকে বিরত থাকা একটা খারাপ দৃষ্টান্ত হতো।

কিন্তু এই ঘটনা দক্ষিণ কোরিয়ার সুবিধাভোগী শ্রেণীর মানুষদের নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে বিতর্ক তৈরি করেছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই শ্রেণীভুক্ত মানুষদের দুর্নীতির নানা কেলেঙ্কারির ঘটনা সেদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

এর আগের সরকারের পতন ঘটেছিল দুর্নীতির অভিযোগকে কেন্দ্র করে। সাবেক প্রেসিডেন্ট পাক গান-হে বর্তমানে ঘুষ ও ক্ষমতা অপব্যবহারের দায়ে জেল খাটছেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট পাকের অধীনে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন মি: হোয়াং। কোন কোন পর্যবেক্ষক বলছেন, জনগণের সামনে তার এই অভিনব প্রতিবাদ বর্তমান প্রেসিডেন্ট মুন জে-ইন-কে খাটো করার একটা প্রয়াস।


কিন্তু মাথা ন্যাড়া কেন?

দক্ষিণ কোরিয়ায় মাথার চুল কামিয়ে ফেলা দীর্ঘদিন ধরে চালু প্রতিবাদের একটা রেওয়াজ।

প্রথাগত কনফুসিয়ান আদর্শের মধ্যে এর শেকড় খুঁজে পাওয়া যায়। কোন একটা কারণের প্রতি দায়বদ্ধতা দেখানোর একটা পথ হিসাবে ঐতিহাসিকভাবে এই রেওয়াজ চালু রয়েছে।

১৯৬০ ও ৭০এর দশকে দক্ষিণ কোরিয়ায় যখন সামরিক একনায়কতন্ত্র ছিল, তখন প্রতিরোধের নিদর্শন হিসাবে ভিন্নমতাবলম্বীরা তাদের মাথা কামিয়ে ফেলতেন।

গত কয়েক দশকেও আন্দোলনকারী ও রাজনীতিকরা তাদের প্রতিবাদ দেখাতে মাথা ন্যাড়া করে ফেলেছেন।

২০১৮ সালে, গোপনে মেয়েদের ছবি তোলার জন্য টয়লেটে এবং দোকনের ফিটিং রুম বা মেয়েদের পোশাক বদলানোর বিভিন্ন জায়গায় স্পাইক্যামেরা বসানোর প্রতিবাদ জানিয়ে আয়োজিত এক মিছিলে নারীরা যোগ দেন তাদের মাথার সব চুল ফেলে দিয়ে।

এর দু বছর আগে আমেরিকার মিসাইল বিধ্বংসী ব্যবস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে যোগ দেওয়া নয়শ'র ওপর দক্ষিণ কোরীয় তাদের মাথা ন্যাড়া করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

২০০৭ সালে, নতুন একটি শিল্পকারখানা কোথায় তৈরি করা হবে তা নিয়ে যে বিতর্ক হয়েছিল তাতে প্রতিবাদ জানাতে ইচিয়ন সিটির কয়েকশ' বাসিন্দা মাথার চুল কামিয়ে ফেলে প্রতিবাদ জানাতে পথে নামেন।

মি: হোয়াং-এর প্রতিবাদ স্থল ছিল প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ 'ব্লু হাউসে'র বাইরে।

সোমবার সন্ধ্যায় সেখানে প্রকাশ্যে মাথা কামিয়ে তিনি বলেন মি: চো একজন ''অপরাধী'' এবং তাকে পদত্যাগ করতে হবে।

সেখানে উপস্থিত যেসব মানুষ তার মাথা ন্যাড়া করার ঘটনা দেখছিল তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন: ''আমার মাথার সব চুল ফেলে দিয়ে আমি আমার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আমি আমার দাবি থেকে পিছু হাটব না।''

তার প্রতিবাদ সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলে। দক্ষিণ কোরিয়ার এক নম্বর সার্চ ইঞ্জিন নাভের-এ শীর্ষ দশটি ট্রেন্ডিং স্টোরির একটি ছিল তার মাথা ন্যাড়া করে প্রতিবাদের এই ঘটনা।


সূত্র: বিবিসি। 

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads




Loading...