‘দাসমানব’ জার্নিটা শেষ করলাম

বীরেন মুখার্জী

বীরেন মুখার্জী
বীরেন মুখার্জী

poisha bazar

  • ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৫২

করোনাকাণ্ডে সবাই অবরুদ্ধ; মৃত্যুভীতি ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। কিন্তু দুর্যোগ-দুর্বিপাকে সৃজনশীল মানুষের পথচলা তো বন্ধ হওয়ার নয়! এর প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে আন্তর্জালিক মাধ্যম এবং প্রিন্ট মিডিয়ায়। ফলে প্রতিনিয়তই কিছু না কিছু পড়ছি। করোনাকালে ঘরবন্দি থেকে বেশকিছু নতুন বই পড়ার সুযোগ হয়েছে। নতুন করে ফ্রানৎস কাফকার গল্পসমগ্র অর্ধেকটা পাঠ করলাম। একই সঙ্গে পড়া হলো বিশ্বসাহিত্যের কিছু গল্প-কবিতার অনুবাদ। এছাড়া প্রতিশ্রুতিশীল তরুণদের গল্পের মনস্তত্ত¡ বোঝার জন্য পড়ছি। কয়েকটি ঐতিহাসিক উপন্যাসও পড়লাম। পাঠের ক্ষুধা আমার বরাবরই আছে। যতদিন দৃষ্টিশক্তি সচল থাকে ততদিন পাঠ করে যেতে চাই। তাই লেখার চেয়ে পাঠে মনোযোগ বেশি দিয়েছি। একজন ভালো পাঠক হতে হলে পড়ার তো বিকল্প দেখি না।

করোনাকালে যখনই লিখতে চেয়েছি, নানান উদ্ভট চিন্তা এবং অতীতের স্মৃতি এসে ভর করেছে মাথায়। ভাবলাম আট বছর আগে লিখতে শুরু করা ‘দাসমানব’ উপন্যাস নিয়ে বসি। কয়েকদিন খুবই বেগ পেতে হলো। আউটলাইন আগে করা ছিল কিন্তু মন বসাতে পারছিলাম না কিছুতেই। উপন্যাস রচনা যে কত বড় জার্নি, এটা হাঁড়ে হাঁড়ে টের পেয়েছি। টানা চার মাস দিন-রাত খেটে শেষ পর্যন্ত ‘দাসমানব’ দাঁড় করাতে পেরেছি। এখন সংযোজন বিয়োজনের কাজ করছি। এর মাঝে মাত্র কয়েকটি কবিতা লিখেছি। তবে কবিতা বইয়ের একটি পাণ্ডুলিপি তৈরি করে তা সম্পাদনাও করেছি।

ভিজ্যুয়াল চিত্র নির্মাণের প্রতি আমার প্রচণ্ড আগ্রহ রয়েছে। এ জন্য করোনাকালে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং তিনটি খণ্ড নাটকের চিত্রনাট্য লিখেছি, আমার গল্প থেকে। একটি ডকুমেন্টারি নির্মাণের পরিকল্পনা থেকে এর গবেষণা অংশটি শেষ করলাম। আমি চেষ্টা করি গতানুগতিক আখ্যানের বাইরে গিয়ে আমার গল্পগুলোকে উপস্থাপন করতে। আমার স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটিও মিথনির্ভর। আগামী নভেম্বর মাসে একটি নাটকের শুটিংয়ের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। ‘অনতিদূরের তুমি’ নামে নাটকটির প্রি-প্রোডাকশনের কাজও শেষ পর্যায়ে। এছাড়া ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী হাজংদের ‘টংক আন্দোলন’ নিয়ে কথাসাহিত্যিক সমীর আহমেদের অসাধারণ একটি উপন্যাস আছে ‘টংক’। এ উপন্যাস উপজীব্য করে সিনেমা-উপযোগী একটি চিত্রনাট্য লেখা শুরু করেছিলাম তিন বছর আগে, করোনাকালীন অবরুদ্ধ সময়ে চিত্রনাট্যের কাজ শেষ করেছি। এখন সম্পাদনা করছি।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads







Loading...