গর্বিত জাতি

আবদুল লতিফ জনি

মানবকণ্ঠ
আবদুল লতিফ জনি - ছবি : সংগৃহীত।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ মে ২০২০, ১৯:১২

দেশটা মোদের সোনা ভরা, মানুষ দয়াবান;

হাজার বছর করলো শাসন- মুঘল আর আফগান।

কামার, কুমার, জেলে, তাঁতীর ছোট্ট কুঁড়ে ঘর;

স্বর্গ সুখে থাকতো সবাই সারাটি বছর।

 

পুকুর ভরা মাছ ছিল, গোলা ভরা ধান;

ফসল ভরা মাঠেই ছিল কৃষক ভাইয়ের প্রাণ।

খাল-নদীর ভরা জলে মাঝি-মাল্লার গানে;

জারি, সারি, ভাটিয়ালী বাজতো মধুর তানে।

 

দুষ্টু ছেলে, দস্যি মেয়ে খেলতো নানান খেলা,

আম কুড়াতে, জাম কুড়াতে ছুটতো সারাবেলা।

পূজা, পার্বণ, ঈদের মেলায় কাটতো সুখের দিন,

মধুর স্মৃতির ক্ষণগুলো সেই- আজো অমলিন।

 

কুমার বিকায় মাটির কলস, নানান থালা-বাটি,

কামার বিকায় খুন্তি, কুড়াল, বর্শা আর চাপাতি।

জেলে নৌকায় জাল নিয়ে যায়- নদীর বাঁকে বাঁকে,

শাড়ি, লুঙ্গি, গামছা বুনে তাঁতীর জীবন থাকে।

 

তাঁতের কাপড়- জামদানী আর মসলিনের সুনাম,

রাজ ললনার অঙ্গে শোভায় বাড়লো শাড়ির দাম।

পর্তুগিজ আর ব্রিটিশ জাতি আসলো বণিক বেশে,

সুখের আলো বিলীন হলো- আশাও গেলো শেষে।

 

ধনে-ধান্যে, হীরা-মতির পূর্ণ মহাদেশ,-

লুটে নিলো সোনা-দানা, শূন্য মাথার কেশ!

ভাইয়ে-ভাইয়ে বাঁধলো বিরোধ, ছিন্ন জাতির মন,

দু’শ বছর পরেই পেলাম স্বাধীনতার ক্ষণ,

ধন ফুরালো, মান ফুরালো বর্গী গেলো ফিরে,

এখনো যে শংকা জাগে জীবন নদীর তীরে।।


০২ মে, ২০২০
গুলশান, ঢাকা




Loading...
ads






Loading...