৯০০ বছরের প্রাচীন সমাধিতে মিলেছে জাদুমন্ত্রের খোঁজ

৯০০ বছরের প্রাচীন সমাধিতে মিলেছে জাদুমন্ত্রের খোঁজ
৯০০ বছরের প্রাচীন সমাধি - ফাইল ছবি।

poisha bazar

  • মানবকণ্ঠ ডেস্ক
  • ১১ মার্চ ২০২০, ১৭:০৩

সুদানে প্রায় ৯০০ বছরের পুরনো একটি ভূ-গর্ভস্থ অর্ধ-গোলাকার সমাধি ঘরের সন্ধান পাওয়া গেছে। এতে মেঝে থেকে ছাদ পর্যন্ত জাদুমন্ত্র লিখিত রয়েছে। এই ঘরে আরো পাওয়া গেছে সাতটি মমিকৃত দেহ। আর এগুলো পাওয়া যায় পুরনো ড্যাঙ্গোলার একটি প্রাচীন মঠে, প্রাচীন ও বিশাল নীলনদের তীরে।

সাতটি মমির একটি খুব সম্ভবত আর্চ বিশপ জিওর্জিওসের। প্রাচীন মাকুরিয়া রাজত্বের তিনি ছিলেন বেশ শক্তিশালী ধর্মীয় নেতা। ঘরের দেয়ালগুলো ছিল সাদা চুন দিয়ে রং করা, যার ওপর কালো কালিতে লেখা হয়েছিল অক্ষরগুলো। প্রত্নতত্ত¡বিদরা বলছেন, অক্ষরগুলো ছিল গ্রিক ও ঝধযরফরপ ঈড়ঢ়ঃরপ (মিসরীয় ভাষার সর্বশেষ রূপ) ভাষার।

এছাড়া এখানে লুক, জোহন, মার্ক ও ম্যাথু (মথি) লিখিত গসপেল বা সুসমাচার থেকে বিভিন্ন উদ্ধৃতি এবং জাদুসংক্রান্ত বিভিন্ন নাম ও চিহ্নও দেয়ালের ওপর লিখিত ছিল। এছাড়া মা মেরির উদ্দেশে লিখিত এক খণ্ড প্রার্থনালিপিও উদ্ধার করেছেন গবেষকরা।

তাদের মতে, এ ধরনের লেখাগুলো দেয়ালে লেখা হয়েছিল এই বিশ্বাস থেকে যে, এগুলো মৃতদেহগুলোকে শয়তান বা অশুভ শক্তি থেকে রক্ষা করবে। ওয়ার্স বিশ্ববিদ্যালয়ের এডাম ল্যাজটার বলেন, ‘সমাধি নির্মাণকারীদের বিশ্বাস ছিল এই লেখাগুলো সমাধিকে সুরক্ষা প্রদান করবে।

এছাড়া মৃত্যু ও এরপর স্রষ্টার সম্মুখে উপস্থিত হওয়ার মধ্যবর্তী যে কঠিন সময় সেটাকেও সহজ করে দেবে এই পবিত্র বাণী। ‘এ সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত চড়ষরংয অৎপযধবড়ষড়মু রহ ঃযব গবফরঃবৎৎধহবধহ জার্নালে প্রকাশ হয়েছে।

এ স্থানের খুব কাছেই পাওয়া গেছে আর্চ বিশপ জিওর্জিওসের সমাধি ফলক যাতে লেখা আছে যে, তিনি ১১১৩ সালে ৮২ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন। সে থেকে তারা ধারণা করছেন যে, এই সমাধির মমিগুলোর মাঝে অন্তত একটি হবে কোনো ধর্মীয় নেতার। অন্য মমিগুলোর সবাই ছিল পুরুষ, যাদের বয়স ৪০ বছরের মাঝে।

প্রতিটি মৃতদেহই লিনেনের কাপড় দিয়ে আবৃত ছিল। খুব সম্ভবত শেষ মৃতদেহ ঢোকানোর পর এই ঘরের প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেয়া হয়। কাদামাটি ও লাল ইট দিয়ে এই সমাধি ঘরের প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেয়া হয়।

এই সমাধি ঘরের নির্মাণকাল মাকুরিয়া রাজত্বকালে, যেটা ৭৫০-১১৫০ সালে উন্নতির শিখরে আরোহণ করেছিল। পুরনো ড্যাঙ্গোলা, সুদান ও মিসরের দক্ষিণাংশ শাসন করত এই রাজবংশ। অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে এই ১৪ শতাব্দীতে এই সাম্রাজ্যের পতন ঘটে।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...