মিশিগানে বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ সভায় হট্টগোল


  • সংবাদদাতা, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ০৭ নভেম্বর ২০২২, ১৭:২৯

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে ওয়ারেন সিটি কাউন্সিলের সভায় শ্বেতাঙ্গ এক ব্যক্তি বাংলাদেশিদের নিয়ে বর্ণবাদী মন্তব্য করার প্রতিবাদে ডাকা হয় কমিউনিটি টাউন হল মিটিং। শনিবার ওয়ারেন সিটির বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিশনারস আয়োজিত এ প্রতিবাদ সভায় হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

বাংলাদেশিদের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বর্ণবাদ (রেসিজম) বিরোধী সভায় বাংলাদেশিদের হাতাহাতির দৃশ্য দেখে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন ওয়ারেন সিটির মেয়র প্রোটেম ও কাউন্সিলরসহ অনুষ্ঠানে আসা আমেরিকানরা। প্রতিবাদ সভায় কথা বলাকে কেন্দ্র করে হট্টগোলের ঘটনায় পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

Screenshot_49

ওয়ারেন সিটির বিসমিল্লাহ রেস্টুরেন্টে শনিবার বিকেলে বাংলাদেশি-আমেরিকান কমিশনাররা বর্ণবাদের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানান। কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট গ্রীণ পেট্রিক, ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্যারি ওয়াটস, জয়েন্ট সেক্রেটারি জনাথন ল্যাফার্টিসহ উপস্থিত মার্কিন নাগরিকরা বর্ণবিদ্বেষ ছড়িয়ে দিয়ে যারা এক জাতির সাথে আরেক জাতির বিভক্তি আনতে চায় তাদের নিয়ে কড়া সমালোচনা করেন। বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে সংহতি প্রকাশ করে আরও বক্তব্য রাখেন কাউন্সিল কমিশনার খাজা শাহাব আহমেদ, ফয়সাল আহমেদ, সুমন কবির, আজিজ চৌধুরী, মাহমুদা মৌরি।

প্রতিবাদ সভায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ থেকে লিখিত প্রশ্ন আহবান করেন ওয়ারেন সিটির কমিশনাররা। লিখিত প্রশ্নোত্তর পর্বে অনেকে অংশ নিলেও হ্যামট্রাম্যাক সিটির কাউন্সিলর নাঈম চৌধুরী লিখিত প্রশ্ন দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তাকে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন। বক্তব্য দিতে সুযোগ না দেয়ার একপর্যায়ে হট্টগোলের সৃষ্টি হলে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন আগত মার্কিনীরা।

এ বিষয়ে হ্যামট্রাম্যাক সিটির কাউন্সিলর নাঈম চৌধুরী বলেন, আমি কমিউনিটির নির্বাচিত কাউন্সিলর হিসেবে সভায় বাংলাদেশিদের পক্ষে প্রতিবাদী বক্তব্য দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু কথা বলার সুযোগ না দিয়ে সুমন কবির-জাবেদ চৌধুরী আমাকে ও রাব্বি আলমকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে বের করে দেয়ার চেষ্টা করেন।

Screenshot_50

শারীরিকভাবে লাঞ্চিতের অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে জাবেদ চৌধুরী বলেন, প্রতিবাদ সভাকে নষ্ট করতে নাঈম চৌধুরী অনুষ্ঠানের প্রশ্নোত্তর পর্বকে পাশ কাটিয়ে জোরপূর্বক মাইক্রোফোন কেড়ে নিয়ে বক্তব্য রাখতে চেয়েছিলেন। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে নাইম চৌধুরী ও রাব্বি আলম সভায় বাকবিতন্ডা শুরু করলে সুন্দর অনুষ্ঠানের স্বার্থে আমি তাদের অনুরোধ করে সরানোর চেষ্টা করি।

ওয়ারেন সিটি কাউন্সিলের ক্রাইম কমিশনার সুমন কবির বলেন, বাংলাদেশি হিসেবে খুব লজ্জাবোধ করছি। একজন জনপ্রতিনিধি কিভাবে অনুষ্ঠানের প্রোটোকল ভেঙ্গে জোর করে বক্তব্য দিতে চান। আমেরিকানসহ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ লিখিত প্রশ্ন দিলেও নাঈম চৌধুরী তা অস্বীকৃতি জানিয়ে সভায় হট্টগোলের সৃষ্টি করেন। আমি তাদের বার বার থামানোর চেষ্টায় ছিলাম, হাতাহাতির প্রশ্নই আসে না।


poisha bazar